অপরাজিত থেকে আই লিগের দ্বিতীয় ডিভিশনে চ্যাম্পিয়ন মহামেডান

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গৌরবগাথা ফিরল মহামেডান স্পোর্টিংয়ের। সাতবছরে পরে তারা আই লিগের মূলপর্বে খেলবে। সোমবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে বেঙ্গালুরু ইউনাইটেডের বিপক্ষে গোলশূন্যভাবে খেলা শেষ হতেই মহামেডান আই লিগের দ্বিতীয় ডিভিশন লিগে চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছে।

গত ম্যাচেই সাদা-কালো জার্সিধারীরা ভবানীপুরের বিরুদ্ধে ২-০ গোলে জয় পায়, সেদিনই মূলপর্বে উঠে গিয়েছিল। শুধু বাকি ছিল অপরাজিত থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া। সেটাই হল এদিন যুবভারতীতে। দুই পক্ষই গোলের সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে পারেনি।

খেলা শেষে মহামেডান দলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন। তারা তাদের ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে ঐতিহ্যবাহী এই দলের ফুটবলারদের একটি গ্রুপ ছবি দিয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে যে, দলের ফুটবলারদের সঙ্গে রয়েছেন ক্লাবের শীর্ষ কর্তারাও।

চলতি টুর্নামেন্টের মাঝেই মহামেডান কর্তারা কোচ হিসেবে ছাঁটাই করেন ইয়ান ল-কে। তাঁর বিরুদ্ধে পুলিসে অভিযোগও জানান তাঁরা। ক্লাবের বক্তব্য ছিল, দলের ফুটবলারদের যাবতীয় তথ্য তিনি মিনার্ভা পাঞ্জাব দলে সরবরাহ করতেন। এমনকি তিনি এতটাই প্রাদেশিক ছিলেন যে দলে পাঞ্জাবের ফুটবলারদের সুযোগ দিতেন বেশি। অথচ তাঁদের থেকে বাকিরা বেশি দক্ষতাসম্পন্ন ছিলেন।

তার পরই দলের দায়িত্ব নেন সঈদ রামন ও দলের ফুটবল সচিব দীপেন্দু বিশ্বাস। তাঁরাই মূলত দল তৈরি করে মহামেডানের সাফল্য এনেছেন। বিশেষভাবে কাজ করেছেন দলের ম্যানেজার বিলাল আমেদ খানও। এদিন মহামেডান একটাও ম্যাচ না হেরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরে ক্লাব সচিব ওয়াসিম আক্রাম বলেছেন, ‘‘এটা আমাদের কাছে অক্সিজেন বলতে পারেন। আমরা মূলপর্বে এবার কলকাতার প্রতিনিধিত্ব করব। এটাও বিশেষ সম্মানের। কারণ ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান আইএসএল খেলবে, সেখানে আই লিগে কলকাতার কোনও দল না থাকলে সেটি ভাল হতো না।’’

সোমবার খেলা শেষে মহামেডান দলকে সম্মান জানায় রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। দলের ফুটবলাররা তারপর ফাঁকা গ্যালারির সামনে ভিকট্রি ল্যাপও দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, মোট চারটি দল এই ডিভিশনে খেলেছিল, তার মধ্যে মহামেডানের পারফরম্যান্সে সবচেয়ে বেশি ধারাবাহিকতা ছিল।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More