চার হাজারেরও বেশি ব্রিটেন-ফেরত যাত্রী গত ৪ সপ্তাহে কলকাতা বিমানবন্দরে নেমেছেন! নতুন করোনা স্ট্রেন নিয়ে আশঙ্কা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার লড়াই যেন প্রায় জিতেই এসেছিল ভারত। মাসখানেক ধরেই কমতে শুরু করেছে সংক্রমণের রেট, কমছে মৃত্যুও। কিন্তু এসব ভাল খবরকে ফের ফিকে করে দিয়েছে আর এক আতঙ্ক। করোনার নতুন স্ট্রেন। এর মধ্যেই এই স্ট্রেন ভারতে এসে পৌঁছনোর পূর্ণ সম্ভাবনা রয়েছে। আর তা যদি সত্যি হয়, তবে ৭০ শতাংশ দ্রুত ও বেশি পরিমাণে ছড়াতে পারে সংক্রমণ। সে অবস্থায় যে গোটা করোনা-পরিস্থিতি পুরোপুরি হাতের বাইরে চলে যাবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ঠিক যেমন হয়েছে ব্রিটেনে।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের একটি সূত্র বলছে, গত ২৫ নভেম্বর থেকে ২১ ডিসেম্বরের মধ্যে ব্রিটেন থেকে কলকাতা বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেছsন মোট ৪৩৭১ জন যাত্রী! হ্যাঁ, সংখ্যাটা এতটাই বেশি। এত জনকে খুঁজে বের করে মনিটর করা যে কার্যত অসম্ভব, তা একপ্রকার স্পষ্ট। জানা গেছে, এত জনের মধ্যে ১০৪ জন যাত্রী এ রাজ্যের বাসিন্দা। তার মধ্যে আবার কলকাতারই ৮৩ জন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক রাজ্যগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে, এঁদের সকলের ওপর নজর রাখতে হবে। আরটি পিসিআর টেস্ট করাতে হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও দেশে ফেরার পরে কারও কোনও রকম নতুন উপসর্গ দেখা দিল কিনা তা দেখতে হবে কমপক্ষে ১৪ দিন। তাঁদের নিয়ম মেনে আইসোলেশনেও থাকতে হবে।

কলকাতা ছাড়াও দার্জিলিং, কালিম্পং, শিলিগুড়ি, মুর্শিদাবাদ, উত্তর ২৪ পরগনা, হুগলি, হাওড়ার বাসিন্দারাও রয়েছেন ব্রিটেন থেকে আসার তালিকায়। কেন্দ্র যে যাত্রীদের তালিকা পাঠিয়েছে তাতে ব্যক্তিদের নাম ও ফোন নম্বর থাকলেও, অনেক ক্ষেত্রেই নম্বরগুলি কার্যকর হচ্ছে না। ফলে সেই ব্যক্তির খোঁজও মিলছে না।

এসবের মধ্যেই বিজয়ওয়াড়ার এক মহিলার শরীরে করোনার নতুন স্ট্রেন পাওয়া গেছে বলে দাবি করা হয়েছে আজ সকালে। পূর্ব গোদাবরীর রাজামুন্দ্রি এলাকার বাসিন্দা ওই মহিলা। সূত্রের খবর, গত ২১ ডিসেম্বর তিনি লন্ডন থেকে দিল্লি বিমানবন্দরে নামেন। রিয়েল টাইম আরটি-পিসিআর টেস্ট করিয়ে মহিলার শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়ে। সন্দেহ ছিল তাঁর শরীরে করোনার নতুন স্ট্রেন ছিল। ব্রিটেন থেকে সংক্রমণ নিয়েই ফিরেছিলেন তিনি। দ্রুত ওই মহিলাকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। কিন্তু পরে জানা যায়, কোনওভাবে ওই মহিলা কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে পালিয়ে গিয়েছেন।

ব্রিটেন ফেরত সংক্রামিত মহিলার খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়। সতর্কতা জারি করে পূর্ব গোদাবরীর স্বাস্থ্য দফতর। জানা যায়, কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে পালিয়ে রাজামুন্দ্রির রামকৃষ্ণ নগরে নিজের বাড়ি ফিরেছিলেন ওই মহিলা। তারপর ট্রেন সফরও করেন তিনি। ফলে এ নিয়ে আতঙ্ক আকাশছোঁয়া।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More