শুভেন্দু-তাপসী-মিহির-শঙ্কর ব্যতিক্রম, বাকি সব দলবদলুরা হারলেন, অর্জুন গড় দুরমুশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তৃণমূলের বিধায়ক ছিলেন। কেউ আগেই চলে গিয়েছিলেন বিজেপিতে। কেউ অপেক্ষা করেছিলেন ফের দল টিকিট দেয় কিনা তা দেখা পর্যন্ত। টিকিট না পেয়েই লাইন দিয়েছিলেন হেস্টিংসে বিজেপি দফতরে। সেই দলবদলুদের মধ্যে থেকে যাঁদের এবার ভোটে প্রার্থী করেছিল বিজেপি, তাঁদের অধিকাংশই পরাজিত হলেন।
নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী, হলদিয়ায় তাপসী মণ্ডল, শিলিগুড়িতে শঙ্কর ঘোষ আর নাটাবাড়িতে মিহির গোস্বামী ছাড়া আর কেউ জিতলেন না। নন্দীগ্রামে টানটান ভোট গণনা শেষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারিয়েছেন শুভেন্দু। আর দিনহাটায় উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে হারিয়ে জিতেছেন মিহির গোস্বামী। তাপসী মণ্ডল ছিলেন গতবারের সিপিএম বিধায়ক। ডিসেম্বরে শুভেন্দুর সঙ্গে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। সিপিএমের দার্জিলিং জেলা সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য শঙ্কর ঘোষ ভোটের আগেই যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে। তিনিও জয় পেয়েছেন।

ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল, যাকে অর্জুন সিংয়ের গড় বলা হয়, সেখানেও লাইন দিয়ে দল বদলে আসাদের প্রার্থী করেছিল গেরুয়া শিবির। ফল ঘোষণার পর দেখা যাচ্ছে, অর্জুন গড়কে কার্যত ধুয়ে-মুছে সাফ করে দিয়েছে তৃণমূল। খড়দহে হেরেছেন শীলভদ্র দত্ত, নোয়াপাড়ায় হেরেছেন সুনীল সিং। ২০১৬-র ভোটে কংগ্রেসের টিকিটে শান্তিপুরে জিতেছিলেন অরিন্দম ভট্টাচার্য। পরে তিনি যোগ দিয়েছিলেন তৃণমূলে। ভোটের কয়েক মাস আগে দিল্লি গিয়ে যোগ দেন বিজেপিতে। তাঁকে এবার জগদ্দলে প্রার্থী করেছিল বিজেপি। তিনিও হেরেছেন। পাণিহাটিতে পরাজিত হয়েছেন সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি গতবার কংগ্রেসের টিকিটে দাঁড়িয়েও হেরেছিলেন। এমনকি বীজপুরে মুকুল রায়ের ছেলে শুভ্রাংশু রায়ও হেরেছেন তৃণমূলের কাছে।

শুধু কি ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল। হাওড়া, হুগলি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব বর্ধমানেও ছবিটা এক। ডোমজুড়ে হেরেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। বালিতে পরাজিত হতে হয়েছে বৈশালী ডালমিয়াকে। বালি খালের ঠিক ওপারে উত্তরপাড়া কেন্দ্রে বিজেপি এবার প্রার্থী করেছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চার দশকের ঘনিষ্ঠ সাংবাদিক তথা বিদায়ী তৃণমূল বিধায়ক প্রবীর ঘোষালকে। তিনি হেরেছেন তৃণমূলের কাঞ্চন মল্লিকের কাছে। সিঙ্গুরের প্রবীণ মাস্টারমশাই বিজেপির টিকিটে দাঁড়িয়ে হেরেছেন বেচারাম মান্নার কাছে। অন্যদিকে পূর্ব বর্ধমানের মন্তেশ্বর ও কালনায় হেরেছেন দলবদলু সৈকত পাঁজা এবং বিশ্বজিৎ কুণ্ডু।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More