রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪

রাহুলের মতো নেতাই এখন দরকার, বললেন গোয়ার বিজেপি নেতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী আমাদের অসুস্থ মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে এসেছিলেন। তিনি যেমন সরল, তেমনই বিনয়ী। মানুষ তাঁর এই গুণগুলির প্রশংসা করেন। তাঁর মতো নেতাই এখন গোয়া তথা সারা দেশে প্রয়োজন।

রাহুল সম্পর্কে যিনি এই কথাগুলি বলেছেন, তিনি কোনও কংগ্রেস নেতা হলে আশ্চর্যের কিছু থাকত না। কিন্তু যিনি কংগ্রেস সভাপতির এমন প্রশংসা করেছেন তিনি গোয়ার প্রথম সারির বিজেপি নেতা। তাঁর নাম মাইকেল লোবো। তিনি গোয়া বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার।

মাইকেল ভিনসেন্ট লোবো পেশায় ব্যবসায়ী। ২০১২ সালে বিধানসভা নির্বাচনে কালানগুটে আসন থেকে তিনি নির্বাচিত হন। তিনি নর্থ গোয়া পরিকল্পনা ও উন্নয়ন অথরিটির চেয়ারম্যান। এছাড়া বিভিন্ন সরকারি কমিটিতে আছেন। তাঁর স্ত্রী সাঞ্চা ডেলাইলা লোবো পাররা গ্রামের সরপঞ্চ।

গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পরিকর অগ্ন্যাশয়ের গুরুতর অসুখে ভুগছেন। গত মঙ্গলবার রাহুল টুইট করে জানান, আজ সকালে পানাজিতে পরিকরকে দেখতে গিয়েছিলাম। একেবারেই ব্যক্তিগত কথাবার্তা হয়েছে। আমি তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করি। সোমবারই রাহুল বলেছিলেন, পরিকরের কাছে রাফায়েল চুক্তি সংক্রান্ত গোপন নথিপত্র আছে। গোয়ার এক মন্ত্রী নিজে এই কথা বলেছেন।

অভিযোগ, গোয়ার সেই মন্ত্রী বলেন, মন্ত্রিসভার বৈঠকে একদিন নাকি পরিকর বলেছিলেন, তাঁর কাছে রাফায়েল চুক্তি নিয়ে বেশ কিছু গোপন নথিপত্র আছে। সেই নথি তিনি নিজের শোওয়ার ঘরে রেখেছেন। কে বা কারা নাকি মন্ত্রীর কথাগুলি অডিও টেপে ধরে রেখেছিল। বিজেপি ইতিমধ্যে দাবি করেছে, ওই টেপ জাল। কিন্তু রাহুলের দাবি, ওই টেপ জাল হতেই পারে না। রাফায়েল চুক্তির সময় পরিকর ছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। তাঁর কাছে চুক্তি নিয়ে গোপন নথি থাকতেই পারে। সেজন্য খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও পরিকরকে ভয় করে চলেন।

মঙ্গলবার প্রথমে ঠিক হয়েছিল, রাহুল পরিকরের বাড়িতে যাবেন। কিন্তু তাঁর বিমান যখন গোয়ায় ল্যান্ড করে, ততক্ষণে পরিকর বিধানসভার উদ্দেশে রওনা হয়ে গিয়েছেন। গোয়ার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি গিরিশ ছোড়ানকর রাহুলকে পরিকরের অফিসে নিয়ে যান। তাঁদের সঙ্গে ছিলেন বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা চন্দ্রকান্ত কাভলেকর।

পরিকর তাঁদের বলেন, তিনি যখন ভারতে ও আমেরিকায় হাসপাতালে ছিলেন, রাহুল নিয়মিত তাঁর স্বাস্থ্য সম্পর্কে খোঁজ নিয়েছেন। পরিকরের ছেলের সঙ্গে রাহুলের যোগাযোগ আছে। পরে দুই নেতা পরিকরের অফিস থেকে বেরিয়ে যান। পরিকরের সঙ্গে রাহুল একা কথা বলেন। দু’জনের কথোপকথন চলে প্রায় সাত মিনিট।

Shares

Comments are closed.