‘বউটা মরে যাবে! পায়ে পড়ছি, ভর্তি নিন,’ দিল্লির হাসপাতালে কাতর আকুতি তরুণের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দেশ জুড়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। সুনামীর মতো আছড়ে পড়েছে ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ। আর সংক্রমণের হার যত বাড়ছে ততই ক্রমশ প্রকট হচ্ছে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার বেহাল দশা। কোথাও বেডের জন্য হাসপাতালের বাইরে লম্বা লাইন তো কোথাও অক্সিজেনের জন্য হাহাকার, একের পর এক মর্মান্তিক ছবি সামনে আসছে বারবার।

এদিন দিল্লির এক খ্যাতনামা কোভিড হাসপাতালের বাইরে দেখা গেল তেমনই এক হাহাকারের ছবি। করোনা আক্রান্ত স্ত্রীকে নিয়ে এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালের দরজায় দরজায় হন্যে হয়ে ঘুরলেন এক ব্যক্তি। কিন্তু সব জায়গায় তাঁর জন্য ছিল একটাই উত্তর, “কোনও বেড খালি নেই”।

জানা গেছে, ওই ব্যক্তির নাম আসলাম খান। তাঁর স্ত্রী বছর তিরিশের রুবি খান করোনা আক্রান্ত। উপসর্গ থাকায় স্ত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে বেরিয়েছেন তিনি। বাইকের পিছনে অসুস্থ স্ত্রীকে বসিয়ে ঘুরেছেন একের পর এক হাসপাতাল। কিন্তু কোথাও ঠাঁই হয়নি। তিন তিনটি হাসপাতাল ঘুরে রাজধানীর লোক নায়ক জয়প্রকাশ হাসপাতালে এসে অবশেষে কাতর শুনিয়েছে আসলামের গলা।

হাসপাতাল কর্মচারীদের কাছে হাত জোড় করে তিনি বলেছেন, “আমার স্ত্রী মরে যাবে, দয়া করে ওকে ভর্তি নিন।” সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের প্রশ্নেও অসহায় শোনায় আসলামের গলা। তিনি বলেন, “আমি ওদের পায়ে ধরতেও রাজি আছি। ওরা শুধু বলে যাচ্ছে কোনও বেড খালি নেই। আমি কি তবে বউকে মেঝেতে ফেলে চিকিৎসা করাবো? এভাবে ফেলে রাখলে তো ও মরে যাবে। সেটা আমি কীভাবে হতে দেবো?” কথা বলতে বলতে বাঁধ মানেনি চোখের জল। উদ্বেগ আর আতঙ্কের সুর তাঁর গলায় ছিল স্পষ্ট।

এই মুহূর্তে করোনা চিকিৎসার জন্য রাজধানীর সবথেকে বড় হাসপাতাল লোক নায়ক জয়প্রকাশ। শুধু আসলাম নয়, তার দরজায় লাইন দিয়েছেন আরও অসংখ্য মানুষ। হয়রানির ছবিটা তাঁদের চোখে মুখেও স্পষ্ট। এমনকি তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ জানিয়েছেন, করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পরেও শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছেন তাঁরা। কমে যাচ্ছে অক্সিজেনের মাত্রাও।

দিল্লিতে এমনিতেই অক্সিজেনের আকাল। মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল নিরুপায় হয়ে এ ব্যাপারে কেন্দ্রের সাহায্য চেয়েছিলেন। বিষয়টি হাইকোর্ট অবধিও গড়িয়েছে। সরকারের প্রতি উচ্চ আদালতের কড়া নির্দেশ, “ভিক্ষা করুন, ধার করুন, চুরি করুন, যে করেই হোক অক্সিজেন জোগাড় করুন। এটা আপনাদের কর্তব্য।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More