কর্নাটকে পূর্ত ইঞ্জিনিয়ারের বাড়িতে তল্লাসি, পাইপলাইন থেকে বেরল ২৫ লাখ টাকা, সোনাদানা!

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কর্নাটকের পূর্তবিভাগের (pwd) জয়েন্ট ইঞ্জিনিয়ার (engineer)  পদে কর্মরত সান্থা গৌড়া বিরাদরের কাণ্ড শুনলে আপনি তাজ্জব বনে যেতে বাধ্য। কী  করেছেন তিনি? বাড়ির পাইপলাইনে (pipeline) টাকা (cash), সোনাদানা (gold) লুকিয়ে রেখেছেন! তাঁর বাড়িতে রাজ্যের দুর্নীতি দমন ব্যুরোর তল্লাসি (raid) অভিযানে সব ফাঁস হয়ে গেল। কিছুই আর আড়াল করা গেল না। দুর্নীতিতে (corruption) অভিযুক্ত সরকারি কর্তাব্যক্তিদের (officers) বাড়িতে তল্লাসি অভিযানের অঙ্গ হিসাবে বুধবার বিরাদরের কালবুর্গি জেলার বাড়িতে হানা দেন দুর্নীতি দমন শাখার লোকজন। তাঁদের কাছে গোপন সূত্র মারফত খবর ছিল, বিরাদর অবৈধ উপায়ে অর্জন করা টাকাপয়সা বাড়ির পাইপলাইনে ঢুকিয়ে রেখেছেন। বাইরে থেকে কিছু বোঝারই উপায় নেই। এজন্য তাঁরা অভিযানে সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিলেন এক প্লাম্বারকে (plumber)।

তল্লাসি চলাকালীন প্লাম্বার পাইপলাইন থেকে নোটের তাড়া বের করেন। একের পর এক গোছা গোছা নোট বেরতে থাকে। মোট ২৫ লাখ টাকা পাওয়া যায়। প্রচুর পরিমাণে সোনা-দানাও বেরয়। তল্লাসি অভিযানের ভিডিও করা হয়। তাতে দেখা যায়, প্লাম্বার পাইপলাইনের জয়েন্ট খুলতেই ভিতর থেকে নোট বেরতে থাকে। মানে হিসাববহির্ভূত টাকা বাইরের লোকের নজরের বাইরে রাখতেই সাজানো পাইপলাইনের ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

দুর্নীতি দমনকারী  ব্যুরো আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তির মালিক হওয়ায় ১৫ জন সরকারি কর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছে। মোট ৬০টি জায়গায় তল্লাসি চালিয়েছে তারা। সম্প্রতি বেঙ্গালুরু ডেভেলপমেন্ট অথরিটির অফিসেও তল্লাসি চালায় তারা।

এ ব্যাপারে সম্প্রতি প্রশ্নের উত্তরে রাজ্য সরকার কোনও ধরনের দুর্নীতি বরদাস্ত করবে না বলে জানিয়ে দেন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই। দোষীদের আড়াল করার প্রশ্নই ওঠে না, বলেন তিনি। জানান, দুর্নীতি দমন ব্যুরোর রিপোর্টের ভিত্তিতে রাজ্য সরকার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করবে।

 

 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.