শনিবার, ফেব্রুয়ারি ১৬

পুণ্যস্নানে থাকছে না শালীনতা, স্নানঘাটের ১০০ মিটারে ছবি তোলা নিষিদ্ধ করল এলাহাবাদ হাইকোর্ট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নদীবক্ষে খালি গায়ে একদল লোক। পুণ্যার্থী থেকে নগ্ন সাধু। ভিজা কাপড়ে স্নান সেরে পাড়ে উঠে আসছেন মহিলারাও। কুম্ভমেলায় এমন দৃশ্য হরবখত দেখা যায়। ক্যামেরাবন্দি হয়ে সে সব ছবি সংবাদ মাধ্যম থেকে ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কুম্ভ স্নানের শালীনতা বজায় রাখতে এ বার স্নানঘাটের ছবি তোলা নিষিদ্ধ করল এলাহাবাদ হাইকোর্ট।

শনিবার বিচারপতি পিকেএস বাঘেল ও বিচারপতি পঙ্কজ ভাটিয়ার ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, প্রয়াগরাজে স্নানঘাটের অন্তত ১০০ মিটারের মধ্যে ছবি তোলা যাবে না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মহিলাদের স্নান করার ছবি ভাইরাল হয়ে যাচ্ছে ইন্টারনেটে। ছবি তোলা হচ্ছে নগ্ন সাধুদেরও। এই সব ছবি ঘিরে নানা রকম ব্যাঙ্গাত্মক মন্তব্য ও টিপ্পনী শালীনতার মাত্রা ছাড়াচ্ছে। বিষয়টার উপর আলোকপাত করে হাইকোর্টে মামলা করেন অসীম কুমার নামে এক ব্যক্তি। সেই মামলারই রায়ে এ দিন এমন নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। পরবর্তী শুনানি হবে ৫ এপ্রিল।

এ বারে প্রয়াগে কুম্ভমেলা শুরু হয়েছে মকরসংক্রান্তিতে। অর্থাৎ ১৫ জানুয়ারি। শেষ হবে ৪ মার্চ, মহা শিবরাত্রিতে। তাঁবুশহরে ভিড় নিয়ন্ত্রণে আগে থেকেই কড়া ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন। মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় ৩০,০০০ পুলিশ। রাজ্য পুলিশের পাশাপাশি মোতায়েন করা হয়েছে বিএসএফ, র‍্যাফ, সিআইএসএফ, এসএসবি, এনডিআরএফ, সিভিল পুলিশ, পিএসি ও হোম গার্ড। এছাড়া রয়েছে ৩ হাজার ট্রাফিক পুলিশ। মেলাপ্রাঙ্গনে রয়েছেন বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা। এত মানুষের ভিড়ে যাতে শিশুরা না  হারিয়ে যায়, সেজন্য রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন ট্যাগ ব্যবহার করেছে প্রশাসন।

এবার কুম্ভ মেলা প্রাঙ্গণের আয়তনও আগের বারের তুলনায় দ্বিগুণ। অন্যবার মেলা প্রাঙ্গণের আয়তন হয় ১৬০০ হেক্টর। এবার মেলার আয়তন ৩২০০ হেক্টর।মেলা প্রাঙ্গণে ১,২২,০০০টির বেশি বায়ো টয়লেট। রেকর্ড পরিমাণ অর্থ  ৪২০০ কোটি টাকা খরচ করছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। কুম্ভ মেলার ডিআইজি কে পি সিং বলেছেন, মহিলা তীর্থযাত্রীদের সুবিধার জন্য এই প্রথমবার কুম্ভে তিনটি মহিলা ইউনিট মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া সর্বক্ষণের জন্য প্রস্তুত রয়েছে একটি ফরেন হেল্প ডেস্কও।

 

Shares

Comments are closed.