ভারতে করোনার নতুন স্ট্রেন আরও বেশি সংক্রামক হতে পারে! সতর্ক করলেন এইমস প্রধান

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ভারতে নাগরিকদের মধ্যে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হয়েছে বলে যে প্রচার করা হচ্ছে, তা মিথ ছাড়া কিছু নয়। ৮০ শতাংশ মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হলে তবেই বলা যেতে পারে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হয়েছে। শনিবার এক বেসরকারি সংবাদমাধ্যমে একথা জানিয়েছেন এইমসের প্রধান রণদীপ গুলেরিয়া। তাঁর মতে, মহারাষ্ট্রে করোনার যে নতুন স্ট্রেনের সন্ধান মিলেছে, তা আরও ছোঁয়াচে ও বিপজ্জনক হতে পারে। এমনকি যাঁদের একবার করোনা হয়ে গিয়েছে, তাঁদেরও আক্রমণ করতে পারে ওই নতুন স্ট্রেন।

মহারাষ্ট্রের কোভিড টাস্ক ফোর্সের সদস্য শশাঙ্ক যোশি জানিয়েছেন, গত সপ্তাহ থেকে নতুন করে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে ভারতে। এদেশে করোনার নতুন ২৪০ টি স্ট্রেন পাওয়া গিয়েছে। সেজন্যই সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

শনিবার শহরের মেয়র কিশোরী পেডনেকর মানুষকে সতর্ক করে বলেছেন, যদি সংক্রমণ না কমে এবং যথাযথ সতর্কতা না মেনে চলা হয়, তিনি ফের লকডাউন করবেন। সুতরাং লকডাউন এড়াতে চাইলে মুম্বইয়ের বাসিন্দারা যেন কঠোরভাবে করোনা সতর্কতা মেনে চলেন।

মেয়র বলেন, বাণিজ্যনগরী মুম্বইতে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। বৃহন্মুম্বই কর্পোরেশন সংক্রমণ ঠেকাতে যথাসাধ্য চেষ্টা করছে। করোনা সংক্রমণ নিয়ে মানুষকে সচেতন করার জন্য মেয়র এদিন শহরের রাস্তায় মাস্ক বিলি করেন।

শুক্রবার মহারাষ্ট্রে নতুন করে করোনা সংক্রমিত হন ৬১১২ জন। রোগমুক্ত হয়েছেন ২১৫৯ জন। মারা গিয়েছেন ৪৪ জন। এদিন মুম্বইতে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৯৭ জন। আমাদের দেশে মহারাষ্ট্রেই এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। তিন মাস পরে ফের রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ ৬ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মহারাষ্ট্রে করোনার কয়েকটি নতুন মিউটেশন হয়েছে। সেজন্যই বেড়েছে সংক্রমণ।

সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ইতিমধ্যেই একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন বা বিএমসি-র কমিশনার ইকবাল সিং চাহাল একটি নির্দেশিকায় জানিয়েছেন বিয়েবাড়ি ও জমায়েত নিষিদ্ধ করা হচ্ছে। বিএমসি জানিয়েছে, লোকাল ট্রেনে ৩০০ মার্শাল নিযুক্ত করা হয়েছে। কোনও যাত্রী মাস্ক ছাড়া যাত্রা করলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বিয়েবাড়ি, ক্লাব, রেস্তোরাঁ প্রভৃতি জায়গায় ঠিকভাবে কোভিড বিধি মেনে চলা হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কোনও বিল্ডিংয়ে পাঁচজনের বেশি কোভিড রোগী থাকলে সেই বিল্ডিং সিল করে দেওয়া হবে। যারা এই নিয়ম মানবে না তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More