রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪

সিবিআই-এর পাল্টা: ভারতী-ঘনিষ্ঠ অফিসারকে তুলে নিল সিআইডি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ধর্মতলার ধর্ণামঞ্চ থেকেই বিজেপি-র বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেছিলেন, “তোমার সিবিআই থাকলে, আমার সিআইডি আছে।” শুক্রবার বিকেলে সেই সিআইডি-ই আলিপুরদুয়ার থেকে গ্রেফতার করল প্রদীপ রথকে। সেই প্রদীপ রথ, যিনি সদ্য বিজেপি-তে যোগ দেওয়া ভারতী ঘোষের দাসপুর মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত পুলিশ আধিকারিক।

ডিআইজি সিআইডি প্রবীণ কুমারের নেতৃত্বে রাজ্য গোয়েন্দাদের একটি দল গোপন অপারেশন চালায় আলিপুরদুয়ারে। তারপর গ্রেফতার করা হয় জামিনে থাকা এই পুলিশ আধিকারিককে। ভারতী ঘোষের বিরুদ্ধে দাসপুরে দায়ের হওয়া মামলায় আগে গ্রেফতার করা হয়েছিল প্রদীপবাবুকে। সেই সময় তিনি ছিলেন দাসপুর থানার দায়িত্বে। পরে তিনি জামিন পান। যোগ দেন কাজেও। জানা গিয়েছে, আলিপুর দুয়ারের পুলিশ সুপারের দফতরে স্পেশাল অপারেশন গ্রুপে কর্মরত ছিলেন তিনি।

ভারতী ঘোষের বিরুদ্ধে অভিযোগকারী এবং ওই মামলায় সাক্ষীদের কল লিস্ট সার্ভিস প্রোভাইডারের কাছ থেকে নিয়ে ভারতীর হাতে তুলে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। অভিযোগ, ওই তথ্য সুপ্রিম কোর্টে পেশ করেছিলেন ভারতী। সিআইডি-কে হেয় করতেই ওই কাজ করা হয়েছিল বলে রাজ্য গোয়েন্দা সংস্থার কর্তাদের দাবি।

মাস দুয়েক আগেই দিল্লির মালব্যনগরের একটি হোটেল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল ভারতীর আপ্তসহায়ক সুজিত মণ্ডলকে। দীর্ঘদিন ধরে সুজিতকে খুঁজছিল সিআইডি। একবার তো লোকমান্য তিলক থানায় বাগে পেয়েও তাঁকে ধরতে পারেনি গোয়েন্দারা।

দীর্ঘদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকার পর কয়েকদিন আগেই জনসমক্ষে এসেছেন পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার। মুকুল রায়ের হাত ধরে, কেন্দ্রীয় বিজেপি দফতরে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েছেন একদা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-ঘনিষ্ঠ এই আইপিএস। যিনি একসময় উর্দি গায়ে চাপিয়েই প্রকাশ্যে বলতেন, মমতা ‘জঙ্গলমহলের মা’। পদ্মশিবিরে যোগ যোগ দেওয়ার পরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূলের বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছেন তিনি। বিজেপি নেতাদের অনেকের মতে, ভারতী পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার থাকার সময় যা যা করতেন সেটা তাঁর মস্তিষ্কপ্রসূত নয়। তৃণমূলের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের নির্দেশেই সেই কাজ করতে হতো ভারতীকে। এ বার বাংলা জুড়ে ঘুরে ঘুরে সেই কথাই ভারতীকে দিয়ে বলানোর ব্লু-প্রিন্ট ছকেছেন বিজেপি নেতারা। কিন্তু রাজীব কুমারকে যখন সিবিআইয়ের মুখোমুখি হওয়ার জন্য কলকাতা থেকে শিলং ছুটতে হচ্ছে, পর্যবেক্ষকদের মতে, তার পাল্টা হিসেবেই ভারতী-ঘনিষ্ঠ অফিসারকে নিজেদের জালে তুলে নিল ভবানীভবনের গোয়েন্দারা। আরও এমন কতো পাল্টা মুভ হয়, এখন সেটাই দেখার।

আরও পড়ুন-

#Breaking: শিলংয়ে রাজীব কুমারকে জেরা করতে শনিবার রাতে আরও দুঁদে অফিসার পাঠাচ্ছে সিবিআই

Shares

Comments are closed.