চার দশক পর তুষারপাত পাঞ্জাবে, টুইট করলেন অমিতাভ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মক্কি কি রোটি, সরসো দা সাগ কিংবা মালাইওয়ালা লস্যি অথবা বাটার চিকেন—–এই সবকিছুর মেলবন্ধন মেলে একটিই রাজ্যে, যার নাম পাঞ্জাব। তবে এই সবকিছুর পাশাপাশি পাঞ্জাবের আরও একটা আকর্ষণ হলো সরষে ক্ষেত। সেলুলয়েডেও পাঞ্জাবের সরষে ক্ষেতের একটা আলাদা ইউএসপি আছে। অন্তত ভারতবাসীর জীবনে রোম্যান্সের পাশাপাশি হলুদ ফুলে ঢাকা পাঞ্জাবের সরষে ক্ষেতের মাহাত্ম্য অনেকটাই বেশি। কারণ যশ রাজের হাত ধরে অমিতাভ-রেখা থেকে শাহরুখ-কাজল, বড় পর্দায় এই সরষে ক্ষেতেই প্রেম করেছেন বলিউডের হাইপ্রোফাইল জুটিরা।

প্রায় ৪০ বছর পর এই পাঞ্জাবেই বরফ পড়েছে। সামান্য স্নো-ফল নয়, একেবারে বরফের পুরু চাদরে ঢেকে গিয়েছে পাঞ্জাবের পাঠানকোট এবং সাংরুর জেলার রাস্তাঘাট। বরফের আস্তরণে ঢাকা পড়েছে পাঞ্জাবের অন্যতম আকর্ষণ হলুদ সরষে ফুলে ঢাকা ক্ষেত। একই ছবি গমের ক্ষেতেও। সেই ছবিই সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন অমিতাভ বচ্চন। বরফে মুড়ে যাওয়া পাঞ্জাবের চাষের ক্ষেতের ছবি নিঃসন্দেহে মনোরম দৃশ্য। কিন্তু একই সঙ্গে কৃষকদের জন্য এই পরিস্থিতি আতঙ্কের। কারণ বরফ পড়ায় ক্ষেতের পর ক্ষেত জুড়ে নষ্ট হয়ে গিয়েছে সরষে ফুল। নষ্ট হয়েছে গমের বীজও।  ফলে চাষের যে ব্যাপক ক্ষতি হবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

প্রকাশ্যে অনেক জায়গাতেই নিজেকে ‘এলাহাবাদের কিষাণ’ বলে পরিচয় দেন বিগ বি। জনতাকে বারবার বুঝিয়ে দেন তিনি তাঁদেরই মতো একজন ‘আম আদমি’। একেবারে মাটির মানুষ। আর তাই চাষিদের ক্ষতি এবং তার ফলে তাঁদের সংসারে যে প্রভাব পড়বে সেটা ভালোই বুঝতে পেড়েছেন অমিতাভ বচ্চন। নিজের টুইটে কৃষকদের প্রতি সমবেদনাও জানিয়েছেন তিনি। লিখেছেন, “ফসলগুলো প্রায় সবই নষ্ট হয়ে গিয়েছে। চাষিদের জন্য এটা খুবই দুঃখজনক এবং কঠিন পরিস্থিতি।” এই পরিস্থিতির সঙ্গে চাষিরা কীভাবে যুঝবেন সেই নিয়েও চিন্তা প্রকাশ করেছেন সিনিয়র বচ্চন।

https://www.youtube.com/watch?v=0QrhcKULIDA

মূলত এই শীতের সময়েই সরষে এবং গম—দু’টো ফসলই কাটার সময়। দুই ক্ষেত্রেই শীতের শুরুতে বীজ বোনা হয়। আর মরশুমের মাঝামাঝি বা শেষের দিকে কাটা হয় ফসল। আর ফসল তোলার সময়েই এ হেন তুষারপাতে নষ্ট হয়ে গিয়েছে প্রচুর পরিমাণ ফসল। ফলে আগামীদিনে তীব্র আর্থিক অনটনের মধ্যে পড়তে পারেন বলেই আশঙ্কা করছেন পাঞ্জাবের চাষিরা।

The Wall-এর ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More