তুষারপাতের মধ্যেই এনকাউন্টার, কাশ্মীরে খতম দুই জঙ্গি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বরফে ঢেকেছে গোটা উপত্যকা। বিপর্যস্ত জনজীবন। বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন হাসপাতালের মতো জরুরি পরিষেবা ক্ষেত্রে।  কিন্তু এর মধ্যেও অব্যাহত গুলির লড়াই। শনিবার রাতে সোপিয়ানে সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে দুই জঙ্গির। রবিবার সেনাবাহিনীর তরফে এই খবর নিশ্চিত করা করা হয়েছে।

সেনাবাহিনীর আশঙ্কা ছিল তুষারাপাতের সময়কেই বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার করতে পারে জঙ্গিরা। সেই মতো সেনাবাহিনীর একটি বিশেষ কর্ডন তল্লাশিতে নেমছিল। তল্লাশি চলাকালীনই খবর আসে সোপিয়ানে ঘাঁটি গেড়েছে অন্তত চার জঙ্গি। শুরু হয় অপারেশন। তল্লাশি অভিযান রূপ নেয় সংঘর্ষের। নিরাপত্তাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়েই তাঁদের উদ্দেশে গুলি ছুড়তে শুরু করে জঙ্গিরা। পাল্টা জবাব দেয় ভারতীয় সেনাও। সেনাবাহিনীর এক আধিকারিক জানিয়েছেন, দুই জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে এনকাউন্টারে। তাদের নাম মহম্মদ ইরফান ভাট এবং শাহিদ মীর। এর মধ্যে ইরফান গতবছর জঙ্গি খাতায় নাম লিখিয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। আরও এক জঙ্গি-দম্পতি পালিয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছে সেনাবাহিনী। এরা সবাই হিজবুল মুজাহিদিনের সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে প্রচুর  অস্ত্র।

গত সপ্তাহেই জঙ্গি নিধনে বড় সাফল্য পেয়েছিল নিরাপত্তাবাহিনী। সঙ্গর্ষে খতম হয়েছিল মাসুদ আজাহারের ভাইপো-সহ আরও এক জঙ্গি। উদ্ধার হয়েছিল অত্যাধুনিক কার্বাইন। গত প্রায় এক মাস ধরেই উপত্যকার প্রশাসনের ঘুম ছুটেছে জঙ্গিদের হাতে থাকা অস্ত্রের খবরে। সেনাবাহিনীর কাছে খবর, জঙ্গিদের কাছে রয়েছে স্নাইপার রাইফেল। এর মধ্যেই সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত জানিয়েছিলেন, উপত্যকায় জঙ্গি কার্যকলাপ ঠেকাতে নতুন পদক্ষেপ নেবে সেনাবাহিনী। গত সপ্তাহেই সেনাবাহিনী পাক অধীকৃত কাশ্মীরে ঢুকে আক্রমণ চালিয়েছিল জঙ্গিদের লঞ্চ প্যাডে। একটি ভিডিও প্রকাশ করে এমনই দাবি করেছিলেন সেনাকর্তারা। এর মধ্যেই  শনিবার রাতে ফের জঙ্গি খতম হলো কাশ্মীরে।

The Wall-এর ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More