‘মিথ্যাবাদী প্রেসিডেন্ট’! চার বছরে ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যে কথা বলে রেকর্ড করেছেন ট্রাম্প

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এমন ঝুড়ি ঝুড়ি মিথ্যা মনে হয় আর কোনও প্রেসিডেন্ট বলেননি। আমেরিকার ইতিহাসে বিরল দৃষ্টান্ত তৈরি করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আমেরিকার জনপ্রিয় সংবাদপত্র ওয়াশিংটন পোস্ট এই দাবি করেছে। সেই ২০১৭ সাল থেকে কুড়ি সাল অবধি, ট্রাম্প যত দাবি করেছিলেন তার হিসেব মেলানো হয়। তাতেই চোখ কপালে উঠেছে। নির্বাচনী প্রচারের সময়টা যদি ছেড়েও দেওয়া হয়, তাহলে প্রেসিডেন্টের গদিতে থাকার সময় ট্রাম্প যত মিথ্যা দাবি করেছেন তার সংখ্যা দাঁড়ায় ৩০ হাজার ৫৭৩। তাছাড়া ঝুটো আশ্বাস তো দিয়েছেনই।

প্রেসিডেন্ট পদে থাকার সময় একের পর এক নজির গড়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন ইতিহাসে তিনিই একমাত্র প্রেসিডেন্ট যাঁকে দুবার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হতে হয়েছে। ক্ষমতা হস্তান্তরের সময় ক্যাপিটল হিলে নজিরবিহীন বিক্ষোভ, চরম বিশৃঙ্খলার জন্যও তিনিই দায়ী। আবার মিথ্যা কথা বলতেও এক নম্বরে তিনি। ওয়াশিংটন পোস্টের দাবি, এ যাবৎ আমেরিকার সবচেয়ে মিথ্যাবাদী প্রেসিডেন্টের তকমাটা ট্রাম্পেরই প্রাপ্য।

প্রতিদিন, প্রতি সপ্তাহে মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প। হিসেব কষে দেখা গেছে, প্রেসিডেন্ট হওয়ার প্রথম দিনেই ১০টি মিথ্যা দাবি করেন ট্রাম্প। দ্বিতীয় দিনে আরও পাঁচটি। ক্রমান্বয়ে সেটাই বাড়তে থাকে। এক সপ্তাহ ও এক মাসের হিসেব চমকে দেওয়ার মতো। ট্রাম্প যত মিথ্যা বলেছেন তার তালিকা করে একটি ফ্যাক্ট-টেক শিটও তৈরি করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট হওয়ার প্রথম বছরে দিনে অন্তত ছ‘টি করে মিথ্যে কথা বলতেন ট্রাম্প। দ্বিতীয় বছরে দিনে ১৬টি করে মিথ্যে বলতেন। তৃতীয় বছরে সেটাই বেড়ে দিনে ২২টি করে মিথ্যে বলতেন ট্রাম্প। চতুর্থ বছরে মিথ্যের সব রেকর্ড ভেঙে যায়। দিনে গড়ে ৩৯টি করে মিথ্যে বলতেন ট্রাম্প। এই হিসেবে চার বছরে তাঁর মিথ্যা ঝুলি ভরে ওঠে। হিসেবে দাঁড়ায় মোট ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যে দাবি করেছেন আমেরিকার সবচেয়ে ‘মিথ্যাবাদী প্রেসিডেন্ট’।

এই চার বছরে যত জনসভা করেছেন ট্রাম্প, সেখানেও মিথ্যার ঝাঁপি খুলে দিয়েছিলেন তিনি। অভিবাসন নীতি, মেক্সিকোর পাঁচিল, শিক্ষা, স্বাস্থ্য সবেতে মিথ্যা দাবি করেছেন। ২০১৯ সালে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ফোনে কথা হয় ট্রাম্পের। সেই সময় জো বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্ত করার কথা বলেছিলেন ট্রাম্প। সমীক্ষা বলছেন, সেই সময় চার মাসে হাজারের বেশি মিথ্যে কথা বলেছিলেন তিনি।

তবে মিথ্যের সব রেকর্ড ছাপিয়ে গেছে গত বছর। করোনা মহামারীর সময় প্রকাশ্য জনসভায়, ভিডিও কনফারেন্সে, টুইটে, নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সব জায়গায় ঝুড়ি ঝুড়ি মিথ্যে বলে গিয়েছেন ট্রাম্প। শুধু করোনা মোকাবিলা সংক্রান্ত বিষয়েই চার হাজারের বেশি মিথ্যে দাবি করেছেন। নিজে সংক্রামিত হওয়ার আগে অবধি দিনে নাকি ১৫০টিরও বেশি মিথ্যে বলতে শোনা গেছে ট্রাম্পকে। সত্যিই চমকে দেওয়ার মতো!

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দুর্নীতি হয়েছে দাবি তোলার পরে ক্রমাগত মিথ্যে অভিযোগ করে গেছেন। ৩ নভেম্বর থেকে ৬ জানুয়ারি অবধি, ভোট দুর্নীতির অভিযোগ তুলে আটশোরও বেশি মিথ্যে বলেছেন ট্রাম্প। ক্যাপিটল হিলে হামলার পরেও ১০৭টি মিথ্যে দাবি করেছেন বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট। ইমপিচমেন্টের সময় যে সংখ্যা আরও বেড়েছে। ফ্যাক্ট-চেক শিটে বলা হয়েছে, নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে ২৫ হাজারের বেশি মিথ্যে টুইট করেছেন ট্রাম্প। ডেটাবেসে আবার রেকর্ড করা আছে, ৫০ লক্ষের বেশি মিথ্যা কথা টাইপ করেছিলেন তিনি। এমন নজির আজ অবধি আর কোনও মার্কিন প্রেসিডেন্টের নেই।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More