বাঘিনী অবনীর মৃত্যুর ২ বছর পরে তার শাবককে ছাড়া হল জঙ্গলে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মানুষ খেকো ঘোষণা করার পরে ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে গুলি করে মারা হয়েছিল বাঘিনী অবনীকে। এই ঘটনার দু’বছর পরে তার শাবককে মহারাষ্ট্রের নাগপুরের পেঞ্চ টাইগার রিজার্ভে ছাড়া হল।

অবনীর শাবকও বাঘিনী। তার বয়স ৩ বছর ২ মাস। শুক্রবার পিটিআরএফ-৮৪ নামের এই শাবককে ছাড়া হয় জঙ্গলে। পেঞ্চ টাইগার রিজার্ভের চিফ কনজার্ভেটর অফ ফরেস্টস অ্যান্ড ফিল্ড ডিরেক্টর একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, পান্ধারকাওয়াদার বাঘিনী অবনীর (পিকেটি-১) মৃত্যুর পরে পেঞ্চ টাইগার রিজার্ভের তিত্রালমাঙ্গিতে একটি ইন-সিটু খাঁচার মধ্যে রাখা হয়েছিল তার শাবককে। ন্যাশনাল টাইগার কনজার্ভেশন অথরিটির স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর মেনে তাকে জঙ্গলে ছাড়া হয়েছে।

অবনীর মৃত্যুর পরে ২০১৮ সালের ২২ ডিসেম্বর তার শাবককে উদ্ধার করে পেঞ্চ টাইগার রিজার্ভে নিয়ে আসা হয়েছিল। তারপরে ৫.১১ হেক্টর ইন-সিটু খাঁচার মধ্যে দু’বছর ধরে ছিল সে। তারপরে এক বিশেষজ্ঞ দল তাকে পরীক্ষা করে জানায় যে জঙ্গলে যাওয়ার জন্য সম্পূর্ণ তৈরি অবনীর শাবক। তারপরেই তাকে ছাড়ার জন্য একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল ন্যাশনাল টাইগার কনজার্ভেশন অথরিটির কাছে। অনুমতি পাওয়ার পরেই তা কার্যকর হয়েছে।

পেঞ্চ টাইগার রিজার্ভের তরফে জারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জঙ্গলে ছাড়ার আগে ওয়াইল্ডলাইফ ইন্সটিটিউট অফ ইন্ডিয়ার বিজ্ঞানীদের সাহায্যে শাবকের গলায় রেডিও-কলার লাগানো হয়েছে। এই রেডিও কলারের সাহায্যে শাবকের গতিবিধির উপর নজর রাখা হবে। যদিও এতদিন খাঁচায় থাকার পরে জঙ্গলে সে কীভাবে থাকবে সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত ভাবে কিছু বোঝা যাচ্ছে না। অবশ্য বেশ কিছুদিন ধরে ক্রে-ওয়াইল্ডিং টেকনিক ব্যবহার করে তাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

মহারাষ্ট্রে ১৩ জনকে মেরে খেয়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছিল অবনীর বিরুদ্ধে। তাই বন দফতরের নির্দেশে ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে ইয়াবতমল জেলায় গুলি করে মারা হয় তাকে। তারপরেই তার শাবককে উদ্ধার করে এনে রাখা হয়েছিল। এবার তাকেও জঙ্গলে ছাড়া হল।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More