কোভিডে নতুন সংক্রমণ হু হু করে কমছে, দৈনিক আক্রান্ত ৯০ হাজার থেকে কমে ৩৬ হাজার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দৈনিক সংক্রমণের গ্রাফ কমছে দেশে। একটা সময়ে সর্বোচ্চ নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছিল প্রায় ৯০ হাজার। সেখান থেকে এখন দৈনিক সংক্রমণ নেমেছে ৩৬ হাজারে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই নতুন সংক্রমণ ৫০ হাজার থেকে ৬০ হাজারের মধ্যে ঘোরাফেরা করছিল। আজ মঙ্গলবার কেন্দ্রের বুলেটিনে দেখা গেল, নতুন সংক্রমণ অবিশ্বাস্যভাবে কমেছে। তবে এটাও বোঝা যাচ্ছে যে, ভারতে বহু মানুষ কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন। করোনার সংক্রমণ ছড়িয়েছে অনেকের শরীরেই। যদিও এখন সুস্থতার হার বেড়েছে দেশে। তবে সর্বভারতীয়ভাবে সংক্রমণের হার কমলেও কয়েকটি রাজ্যে এখনও দৈনিক সংক্রমণ চিন্তার কারণ। যেমন পশ্চিমবঙ্গে পুজোর কয়েকটা দিনে নতুন সংক্রমণ চার হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছিল। অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যাও বেড়েছিল। বাংলায় এখনও পর্যন্ত সংক্রমণের হার কমার তেমন কোনও লক্ষণ দেখা যায়নি।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুসারে আজ ২৭ অক্টোবর মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭৯,৪৬,৪২৯। এখনও পর্যন্ত দেশে মৃত্যু হয়েছে ১,১৯,৫০২ জনের। সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৭২,০১,০৭০ জন। ভারতে এখন অ্যাকটিভ কেস ৬,২৫,৮৫৭। দেশে এখন সুস্থতার হার ৯০.৬২ শতাংশ। আর মৃত্যুহার ১.৫০ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬,৪৭০ জন। গত তিন মাসে এই প্রথম এতটা কমেছে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এর আগে গত ১৮ জুলাই ভারতে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৩৪,৮৮৪। গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৪৮৮ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৬৩,৮৪২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৯,৫৮,১১৬ জনের কোভিড টেস্ট করানো হয়েছে। একধাক্কায় দৈনিক সংক্রমণ নেমেছে ৪০ হাজারের নীচে। পাল্লা দিয়ে কমেছে দৈনিক মৃতের সংখ্যাও। তবে দেশে আশানুরূপ ভাবে বেড়েছে সুস্থতার সংখ্যা।

ভারতের কোভিড পরিসংখ্যানের শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। দেশে কোভিড সংক্রমণের প্রাথমিক পর্যায় থেকেই মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত এবং কোভিড সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। মুম্বই এবং পুণে এই দুই জায়গা হল মহারাষ্ট্রের অন্যতম করোনা হটস্পট। এরপর দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। তৃতীয় স্থানে রয়েছে কর্নাটক। চতুর্থ স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। পঞ্চম স্থানে রয়েছে উত্তরপ্রদেশ এবং ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে রাজধানী শহর দিল্লি। মূলত এই ৬ রাজ্যেই দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মোট ১৬,৪৮,৬৬৫। অন্ধ্রপ্রদেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮,০৮,৯২৪ জন। কর্নাটকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৮,০৫,৯৪৭। তামিলনাড়ুতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭,১১,৭১৩ জন। উত্তরপ্রদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪,৭২,০৭৭। দিল্লিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩,৫৯,৪৮৮। দেশের মোট আক্রান্তের ৬০.৪৯ শতাংশ রয়েছে এই ৬ রাজ্যে।

বিশ্বের কোভিড পরিসংখ্যানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। প্রথম ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে যথাক্রমে আমেরিকা ও ব্রাজিল। অন্যদিকে কোভিড সংক্রমণে মৃতের সংখ্যার নিরিখে বিশ্বের কোভিড পরিসংখ্যানে আমেরিকা এবং ব্রাজিলের পর তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। বিশ্বে এখন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মোট ৪,৩৭,৭৭,১৩৩। কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে মোট ১১,৬৪,৫১৫ জনের। আর সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,২১,৮২,১১১ জন।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More