সংঘাতের মধ্যেই সিকিমে আটকে পড়া তিন চিনা নাগরিককে খাবার, মেডিক্যাল সাহায্য সেনার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: লাদাখে যখন একদিকে চিনা ও ভারতীয় সেনার মধ্যে সংঘাত হচ্ছে, ঠিক তখনই সাধারণ চিনা নাগরিকদের বিপদে ঝাঁপিয়ে পড়লেন ভারতীয় সেনার আধিকারিকরা। সিকিমে হাড় হিম করা ঠান্ডায় আটকে পড়া তিন চিনা নাগরিককে খাবার, গরম কাপড় ও মেডিক্যাল পরিষেবা দিয়ে সাহায্য করল ভারতীয় সেনা।

সেনা সূত্রে খবর, ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর সিকিমের সীমান্ত এলাকায় ভূপৃষ্ঠ থেকে ১৭ হাজার ৫০০ ফুট উঁচুতে। সেখানকার মাইনাস তাপমাত্রায় ওই তিন চিনা নাগরিক পথ হারিয়ে যান। তার ফলে সমস্যায় পড়েন তাঁরা। ওই তিন নাগরিকের মধ্যে একজন মহিলাও রয়েছেন বলে খবর।

জানা গিয়েছে, ওই এলাকায় মোতায়েন সেনা আধিকারিকরা ওই চিনা নাগরিকদের পথ দেখিয়ে সীমান্তের অন্য দিকে অর্থাৎ চিনের দিকে তাঁদের গন্তব্যে পৌঁছে দেন। শুধু তাই নয়, চিনা নাগরিকদের যখন উদ্ধার করা হয়, তখন তাঁদের অবস্থা খুব খারাপ ছিল। আর তাই তাঁদের খাবার, গরম জামা-কাপড় ও মেডিক্যাল পরিষেবা দিয়ে সুস্থ করে তোলা হয়।

সেনার তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, “উত্তর সিকিমের মালভূমি এলাকায় তিন চিনা নাগরিক হারিয়ে গিয়েছিলেন। মাইনাস তাপমাত্রায় চিনা নাগরিকদের সমস্যার কথা মাথায় রেখে ভারতীয় সেনাবাহিনীর জওয়ানরা তাঁদের কাছে সাহায্যের জন্য পৌঁছে যান। সেখানে তাঁদের অক্সিজেন, খাবার ও গরম জামা-কাপড় দিয়ে সাহায্য করা হয়। তারপর তাঁদের পথ দেখিয়ে গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়া হয়।”

ভারতীয় সেনার তরফে আরও জানানো হয়েছে, “সেনার এই আতিথেয়তায় মুগ্ধ হয়েছে ওই চিনা নাগরিকরা। তাই তাঁরা সাহায্যের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।”

এদিকে লাদাখে সংঘাতের মধ্যে শুক্রবার রাশিয়ার মস্কোতে বৈঠকে বসেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওয়েই ফেংগে। যদিও এই বৈঠকের পরে চিন দাবি করেছে, সীমান্ত উত্তেজনার সব দায় ভারতের। নিজেদের এক ইঞ্চিও জমি তারা ছাড়বে না বলেই জানিয়েছে বেজিং। সীমান্তে সমস্যার জন্য ভারতকে দায়ী করে চিনের এই বিবৃতির পরে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, সীমান্তে শান্তি বজায় রাখার জন্য কথাবার্তা চালিয়ে যেতে প্রস্তুত ভারত। তবে সেইসঙ্গে দেশের সীমান্ত রক্ষায় সেনা যথেষ্ট সমর্থ বলেই জানিয়েছেন তিনি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More