দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিলের স্ট্রেন ছড়াচ্ছে ভারতে, আন্তর্জাতিক সফরের নতুন গাইডলাইন দিল কেন্দ্র

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ব্রিটেন থেকে করোনার নতুন প্রজাতি হানা দিয়েছিল এ দেশেও। এবার দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিল থেকেও করোনার দুটি নতুন স্ট্রেন ছড়িয়ে পড়েছে দেশে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা ফেরত চারজন ও ব্রাজিল ফেরত একজনের শরীরে মিলেছে নতুন স্ট্রেন। সংক্রমণ আরও বেশিজনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তাই আন্তর্জাতির বিমান সফরে ফের নতুন করে কোভিড বিধি বেঁধে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)-এর তরফে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা, আঙ্গোলা এবং তানজানিয়া থেকে আসা যাত্রীদের মধ্যে ৪ জনের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।  তাঁদের আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে ব্রাজিল থেকে আসা এক পর্যটকের শরীরেও কোভিড পজিটিভ পাওয়া গেছে। আইসিএমআরের বিজ্ঞানীরা বলছেন, আক্রান্তের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন মিউট্যান্ট স্ট্রেনের হদিশ মিলেছে।

দেশে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসতে শুরু করেছে। দৈনিক সংক্রমণ ১০ হাজারের মধ্যেই ঘোরাফেরা করছে। এর মধ্যে করোনার নতুন স্ট্রেন ছড়িয়ে পড়লে বিপদ বাড়বে বলেই দুশ্চিন্তা করছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। ব্রিটেন স্ট্রেন এখনও অবধি ১৮৭ জনের শরীরে ধরা পড়েছে। তাঁদের সকলকেই আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিলীয় স্ট্রেনের সংক্রমণ ঠেকাতে তাই কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী হরদীপ সিংহ পুরি বলেছেন, কোনও অন্তর্দেশীয় বা আন্তর্জাতিক বিমানযাত্রীর করোনা উপসর্গ দেখা দিলে স্বাস্থ্য বিধি মানতে হবে। রাজ্যগুলিও নিজেদের মতো মূল্যায়ন করে কোয়ারেন্টাইন ও আইসোলেশনের ক্ষেত্রে নতুন বিধি তৈরি করতে পারে। যাত্রীদেরও কড়া ভাবে নিয়ম মেনে চলার কথা বলেছেন তিনি।

অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের তরফে বলা হয়েছে, কোনও আন্তর্জাতিক সফরের আগে কোভিড টেস্ট করাতে হবে যাত্রীদের। রিয়েল টাইম আরটি-পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক। বিমানে ওঠার ৭২ ঘণ্টা আগে ওই টেস্ট করাতে হবে। শুধুমাত্র মেডিক্যাল এমার্জেন্সি বা পরিবারে কারও মৃত্যু হলে, ছাড় দেওয়া হবে। আরটি-পিসিআর টেস্ট ছাড়া আন্তর্জাতিক সফর করা যাবে না। বিমানে ওঠার আগে থাকবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থাও।

সংক্রমণ ঠেকাতে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের শারীরিক পরীক্ষাতে আরও জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ। তিনি বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকা বা ব্রাজিল থেকে সরাসরি কোনও উড়ান নেই। তবে এ ব্যাপারে বেসরকারি পরিবহণ মন্ত্রক যা যা করণীয় সব করবে। বিমান বা জাহাজে শুধু মাত্র উপসর্গহীন যাত্রীকেই চড়তে দেওয়া হবে। সীমান্ত পেরিয়ে যাঁরা আসবেন তাঁদের ক্ষেত্রেও একই বিধি কার্যকর হবে। যাত্রীদের মাস্ক পরতে হবে। মানতে হবে হাত ধোয়ার বিধিও। বিমানবন্দর ও বিমানে জীবাণুনাশক প্রয়োগ করতে হবে। যাঁদের কম উপসর্গ রয়েছে তাঁরা হোম আইসোলেশন বা কোভিড কেয়ার সেন্টার, যে কোনও জায়গায় থাকতে পারেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More