দ্বিতীয় ঢেউয়ে শ্বাসকষ্ট প্রবল, ফুরোচ্ছে অক্সিজেন, যোগান বাড়াতে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ কেন্দ্রের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে শ্বাসের সমস্যাই বড় হয়ে দেখা দিচ্ছে। সংক্রামিত রোগীদের বেশিরভাগই শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। বয়স্ক রোগীদের অবস্থা আরও সাঙ্ঘাতিক। ভেন্টিলেটর বা অক্সিজেন সাপোর্ট ছাড়া শ্বাসই নিতে পারছেন না অনেকে। এদিকে আক্রান্তের সংখ্যা বিপুল হারে বাড়তে থাকায় রাজ্যে রাজ্যে অক্সিজেন সিলিন্ডারের আকাল দেখা দিয়েছে। অক্সিজেন মাস্কও কম। তাই রাজ্যগুলিকে যত দ্রুত সম্ভব অক্সিজেন সিলিন্ডারের ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

নীতি আয়োগের সদস্য ভি কে পল বলেছেন, করোনার প্রথম ধাক্কা আসার পরে রোগীদের জ্বর, গা হাত পায়ে ব্যথা এমন উপসর্গই বেশি দেখা যাচ্ছিল। সেই সঙ্গে শ্বাসের সমস্যা হচ্ছিল কিছু রোগীর। তাছাড়া স্বাদ ও গন্ধ চলে যাওয়ার মতো উপসর্গ তো ছিলই। দ্বিতীয় ধাক্কায় শ্বাসের সমস্যাই প্রবল হয়ে দেখা দিয়েছে। এই পর্বে দেখা যাচ্ছে, করোনা আক্রান্ত রোগীদের বেশিরভাগেরই বয়স ৪০ বছর বা তার বেশি। আর চল্লিশোর্ধ্ব বেশিরভাগ রোগীরই নানারকম রোগ রয়েছে, তাই তাঁদের শ্বাসকষ্টের সমস্যাও বড় হয়ে দেখা দিয়েছে। কৃত্রিম ভেন্টিলেটর বা অক্সিজেন সাপোর্টের খুব প্রয়োজন হচ্ছে হাসপাতাল-নার্সিংহোমগুলিতে।

Breathlessness In More Patients In Second Wave, More Oxygen Needed: Centre

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চের (আইসিএমআর) ডিরেক্টর জেনারেল বলরাম ভার্গবের কথায়, বয়স্ক রোগীদের সঙ্কট বেশি। কমবয়সীরা তো রয়েছেনই, কিন্তু ৬০ বছরের ওপর প্রবীণ, ৪০ থেকে ৫০ বছর বয়সী কোমর্বিডিটির রোগী যাদের শরীরে দীর্ঘদিন ধরে কোনও ক্রনিক রোগ বাসা বেঁধে আছে তাঁদের সংক্রমণজনিত রোগের ঝুঁকি বাড়ছে। হাইপ্রেশার, ডায়াবিটিস, হৃদরোগ, ফুসফুসের সমস্যা বা কিডনির জটিল রোগ রয়েছে এমন রোগীদের শ্বাসকষ্টের উপসর্গ বেশি দেখা যাচ্ছে। এইসব রোগীদের জন্য যেমন দ্রুত কোভিড বেডের ব্যবস্থা করতে হবে তেমনি পর্যাপ্ত অক্সিজেনের যোগানও রাখতে হবে।

দিল্লি, মহারাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশে ইতিমধ্যেই অক্সিজেন সিলিন্ডারের যোগান কম। দিল্লিতে ১৭ হাজার কোভিড বেডের মধ্যে এখন মাত্র হাজার দুয়েক পড়ে রয়েছে, চার হাজার আইসিইউ বেডের মধ্যে খালি মাত্র ৪৮টি। কোভিড বেডের সঙ্গে অক্সিজেন সাপোর্ট নেই বেশিরভাগ হাসপাতালেই। উত্তরপ্রদেশে আজই ১৫০টি জাম্বো অক্সিজেন সিলিন্ডার পাঠিয়েছে ডিআরডিও। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের নির্দেশে আরও হাজার খানেক অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া হবে উত্তরপ্রদেশ সরকারকে।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও ক্রনিক রোগের কারণে ভাইরাসের সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে শরীরে। ডায়াবেটিস, কিডনির রোগ বা ক্রনিক ফুসফুসের রোগ যাদের আছে তারা খুব তাড়াতাড়ি সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটারি সিন্ড্রোমে আক্রান্ত হতে পারে। দেখা গেছে, ইনটেনসিভ কেয়ারে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে থাকা বা কৃত্রিম অক্সিজেন সাপোর্টে থাকা বেশিরভাগ করোনা রোগীই কোমর্বিডিটির শিকার।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More