কৃষি আইনে সংশোধনী আনতে প্রস্তুত কেন্দ্র: কৃষিমন্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কৃষি আইনের বিরুদ্ধে কৃষকদের বিক্ষোভ ১০০ দিন পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু এখনও কৃষি আইন প্রত্যাহারের বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত জানায়নি কেন্দ্র। যদিও এবার কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর জানালেন, কৃষকদের কথা মাথায় রেখে কৃষি আইনে সংশোধনী আনতে কেন্দ্রীয় সরকার তৈরি। সেই সঙ্গে কৃষকদের নিয়ে রাজনীতি করার জন্য বিরোধীদের তুলোধনা করেছেন তিনি।

এগ্রিভিশনের পঞ্চম ন্যাশনাল কনভেনশনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে নরেন্দ্র তোমর বলেন, সরকার কৃষকদের সঙ্গে ১১ দফা বৈঠক করেছে। এমনকি কৃষি আইনে সংশোধনীর প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, কৃষক ও কৃষিক্ষেত্রে উন্নতির জন্যই এই কৃষি আইন নিয়ে আসা হয়েছে। এর মাধ্যমে কৃষকরা নিজেদের ফসল যাকে ইচ্ছা ও যে দামে ইচ্ছা বিক্রি করতে পারবেন। কেউ তাঁদের আটকাতে পারবে না। তার ফলে কৃষকদের হাতে অনেক বেশি টাকা আসবে। এর সরাসরি প্রভাব কৃষিক্ষেত্রে আরও ভালভাবে পড়বে বলেই জানিয়েছেন তিনি।

১০০ দিনের বেশি সময় ধরে চলা এই কৃষক আন্দোলনে কৃষকদের কী লাভ হচ্ছে সেই প্রশ্নও তোলেন তোমর। তিনি বলেন, “গণতন্ত্রে বিরোধিতার জায়গা রয়েছে। কেউ ভিন্ন মত পোষণ করলে তিনি বিরোধিতা করতেই পারেন। কিন্তু দেখতে হবে তাতে যেন দেশের কোনও ক্ষতি না হয়। এই আন্দোলনে কৃষকদের কী লাভ হচ্ছে সেই বিষয়ে কেউ কিছু বলছেন না।”

কেন্দ্রের নিয়ে আসা তিনটি কৃষি আইনে কী ভুল রয়েছে সেটা কৃষক সংগঠনগুলি বা বিরোধীরা কেউ বলতে পারেনি বলেই জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী। তিনি বলেন, “এই গণতন্ত্রে প্রত্যেকেরই যে কোনও রাজনৈতিক মতাদর্শ থাকতে পারে। কিন্তু নতুন প্রজন্মকে ভাবতে হবে কৃষকদের ক্ষতি করে কিংবা কৃষি অর্থনীতির ক্ষতি করে কোনও রাজনীতি হচ্ছে না তো। কৃষক সংগঠন বা বিরোধীরা কিন্তু বলতে পারেনি এই তিনটি কৃষি আইনে কী কী ভুল রয়েছে।”

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে এই সরকার কৃষকদের উন্নতির জন্যই প্রতিটা পদক্ষেপ নিয়েছে এবং ভবিষ্যতেও নেবে বলেই সবাইকে মনে করিয়ে দেন কৃষিমন্ত্রী। আর তাই কৃষকদের কথা ভেবে আইনে সংশোধনী আনতে রাজি হয়েছে সরকার। কিন্তু কোনও সমস্যার সমাধানে দু’পক্ষকেই এগিয়ে আসতে হয় বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। তোমরের মতে সরকারের মতো কৃষকদেরও সমস্যা সমাধানের জন্য এগিয়ে আসা উচিত। নইলে আখেরে দেশের অর্থনীতির ক্ষতি হচ্ছে বলেই মনে করেন তিনি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More