মহারাষ্ট্রে কোভিডের একাধিক মিউটেশনের খোঁজ মিলেছে, করোনা আক্রান্ত দুই মন্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতে গত দু’মাস ধরে সংক্রমণের ছবিটা ভাল হচ্ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই ফের বাড়তে শুরু করেছে দৈনিক সংক্রমণ। তার প্রধান কারণ মহারাষ্ট্র। এই রাজ্যে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা হঠাৎ করে অনেকটা বেড়ে যাওয়াতেই দেশের সার্বিক ছবিতে বদল হয়েছে। মহারাষ্ট্রে কোভিডের একাধিক মিউটেশন দেখতে পাওয়া গিয়েছে বলে খবর। ইতিমধ্যেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন রাজ্যের দুই মন্ত্রীও।

মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপ জানিয়েছেন, তিনি করোনা আক্রান্ত হয়েছে। যদিও তাঁর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলেই জানা গিয়েছে। সম্প্রতি যাঁরা তাঁর সংস্পর্শে এসেছেন তাঁদের টেস্ট করিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন মন্ত্রী।

এছাড়া মহারাষ্ট্রের জল সম্পদ মন্ত্রী তথা রাজ্যের এনসিপি প্রধান জয়ন্ত পাটিলও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

এর মধ্যেই এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে এক বিজ্ঞানী জানিয়েছেন, মহারাষ্ট্রে করোনার একাধিক মিউটেশনের খোঁজ মিলেছে। মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের ডিরেক্টর ডক্টর টি পি লাহানে জানিয়েছেন, এই নতুন মিউটেশনের সিকুয়েন্সিং করার পরেই বোঝা যাবে এর ক্ষমতা বেশি না কম। তাঁরা এই মুহূর্তে সেইসব মিউটেশনের সিকুয়েন্সিংয়ের কাজ করছেন। আগামী ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে তার ফল জানা যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

অমরাবতী, আকোলা ও ইয়াবতমালে চলছে এই সিকুয়েন্সিংয়ের কাজ। অমরাবতী ও ইয়াবতমালে তিনটি করে ও আকোলায় দুটি মিউটেশনের নমুনা পাওয়া গিয়েছে। তবে এখনই এই মিউটেশনগুলিকে নতুন স্ট্রেন বলতে নারাজ ডক্টর লাহানে। তাঁর যুক্তি, অনেক পরীক্ষার পরেই কোনও মিউটেশনকে স্ট্রেন বলা যেতে পারে। তবে এখন মহারাষ্ট্রে আরও অনেক বেশি নমুনা পরীক্ষা করা দরকার বলেই মনে করেন তিনি। নইলে একবার সংক্রমণের ঢেউ শুরু হলে তাকে রোখা ফের কঠিন হয়ে পড়বে বলেই জানিয়েছেন তিনি।

৭৫ দিন পরে গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। এই অবস্থায় সংক্রমণ রোধে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে প্রশাসন। বিএমসি-র মিউনিসিপ্যাল কমিশনার ইকবাল সিং চাহাল একটি নির্দেশিকায় জানিয়েছেন বিয়েবাড়ি ও জমায়েত নিষিদ্ধ করা হচ্ছে। বিএমসি জানিয়েছে, লোকাল ট্রেনে ৩০০ মার্শাল নিযুক্ত করা হয়েছে। কোনও যাত্রী মাস্ক ছাড়া যাত্রা করলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। প্রতিদিন প্রায় ২৫ হাজার যাত্রী ধরা পড়তে পারে বলেই ধারণা।

এছাড়া বিয়েবাড়ি, ক্লাব, রেস্তোরাঁ প্রভৃতি জায়গায় ঠিকভাবে কোভিড বিধি মেনে চলা হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কোনও বিল্ডিংয়ে ৫ জনের বেশি কোভিড রোগী থাকলে সেই বিল্ডিং সিল করে দেওয়া হবে। যারা এই নিয়ম মানবে না তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন।

রাজ্যের দুটি জেলা অমরাবতী ও ইয়াবতমালে কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যা থেকে সোমবার পর্যন্ত লকডাউন থাকবে অমরাবতীতে। সেখানে বাজার, সুইমিং পুল, ইনডোর গেম বন্ধ করা হয়েছে। ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পাঁচজনের বেশি উপস্থিত থাকতে পারবেন না। ইয়াবতমালে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রেস্তোরাঁ ও বিয়ে বাড়িতে ৫০ শতাংশের বেশি উপস্থিতি যাতে না থাকে সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কোথাও পাঁচজনের বেশি জমায়েত করা যাবে না বলেই জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More