কাশ্মীর নিয়ে নাক গলাবেন না, তুরস্কের প্রেসিডেন্টকে সতর্ক করল নয়াদিল্লি

এর আগেও কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য করেছেন এরদোগান। গত বছর রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভার বৈঠকে কাশ্মীর প্রসঙ্গ তুলে এনেছিলেন তিনি। তখনও ভারতের তরফে এরদোগানকে সতর্ক করে বলা হয়েছিল এই বিষয়ে তাঁর মাথা না ঘামালেও চলবে। কিন্তু তারপরেও ফের একই ধরনের মন্তব্য করলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতের নিষেধ সত্ত্বেও ফের একবার জম্মু কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য করলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসাপ তায়িপ এরদোগান। কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়ালেন তিনি। আর তারপরেই ফের একবার এরদোগানকে সতর্ক করল নয়াদিল্লি। তুরস্ককে এই বিষয়ে নাক না গলানোর পরামর্শ দিয়েছে ভারত।

পাকিস্তান সফরে গিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। সেখানে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরানের খানের সঙ্গে বৈঠকের পরে সংবাদমাধ্যমের সামনে এই মন্তব্য করেন এরদোগান। শুক্রবার ইমরানকে পাশে নিয়ে এরদোগান বলেন, “আমাদের কাশ্মীরি ভাই-বোনেরা দশকের পর দশক ধরে কষ্ট সহ্য করে যাচ্ছেন। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে কিছু সিদ্ধান্ত তাঁদের এই কষ্ট আরও বেশি বাড়িয়ে দিয়েছে। পাকিস্তান বরাবর কাশ্মীরের মানুষের পাশে থেকেছে। কিন্তু পাকিস্তানিদের কাশ্মীর নিয়ে যতটা চিন্তা ঠিক ততটাই চিন্তা আমাদেরও। তাই এই সময় এমন একটা সমাধানের প্রয়োজন, যা সবার জন্য ভাল হয় ও শান্তি বজায় থাকে। তুরস্ক বরাবর শান্তি চেয়ে এসেছে। আমরা পাকিস্তানের পাশে রয়েছি।”

এরদোগানের এই মন্তব্যের পরে ভারতের তরফে তুরস্কের প্রেসিডেন্টের সব দাবিকে খারিজ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, পাকিস্তান ও তুরস্কের তরফে যৌথভাবে কাশ্মীরকে নিয়ে যে মন্তব্য করা হয়েছে, তার কোনও যৌক্তিকতা নেই। কাশ্মীর বরাবরই ভারতের অংশ।

বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার বলেছেন, “আমরা তুরস্কের প্রেসিডেন্টকে বলছি জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে নাক না গলাতে। কারণ এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এই বিষয়ে যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার তা ভারত নেবে। তাই এসব না ভেবে আগে দেখুন কী ভাবে প্রতিনিয়ত পাকিস্তান থেকে কাশ্মীরে জঙ্গি পাঠানো হয়। কী ভাবে ভারতে সন্ত্রাস চালানোর চেষ্টা করে পাকিস্তান। তারপরেই কোনও মন্তব্য করা উচিত তুরস্কের প্রেসিডেন্টের।”

তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য করেছেন এরদোগান। গত বছর রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভার বৈঠকে কাশ্মীর প্রসঙ্গ তুলে এনেছিলেন তিনি। তখনও ভারতের তরফে এরদোগানকে সতর্ক করে বলা হয়েছিল এই বিষয়ে তাঁর মাথা না ঘামালেও চলবে। কিন্তু তারপরেও ফের একই ধরনের মন্তব্য করলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More