জঙ্গিদের খুঁজে গুলি মারছি, বিরিয়ানি দিচ্ছি না: যোগী আদিত্যনাথ

দিল্লিতে নির্বাচনী প্রচারে এসে অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে নিশানা বানালেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। বললেন, কেজরিওয়াল দিল্লির উন্নয়নের কথা না ভেবে শাহিনবাগের প্রতিবাদীদের বিরিয়ানি খাওয়াচ্ছেন। কিন্তু তাঁর দল ভারত বিরোধীদের বিরিয়ানি খাওয়াবে না, গুলি খাওয়াবে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিল্লিতে বিধানসভা নির্বাচনের আগে ভোট প্রচারে এসে ফের একবার নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি বিরোধী বিক্ষোভ এবং জঙ্গি কার্যকলাপ নিয়ে মুখ খুললেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে নিশানা বানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের দল জঙ্গিদের বিরিয়ানি দিচ্ছে না, খুঁজে বের করে গুলি মারছে।

শনিবার দিল্লিতে নির্বাচনী জনসভায় কথা বলতে গিয়ে যোগী বলেন, “কেজরিওয়াল দিল্লির মানুষকে পরিষ্কার পানীয় জল দিতে পারছেন না। দিল্লি সরকার মানুষকে বিষ মেশানো পানীয় জল দিচ্ছে। এদিকে শাহিনবাগ ও অন্য জায়গায় যারা প্রতিবাদ করছে তাদের বিরিয়ানি খাওয়াচ্ছে আম আদমি পার্টি।”

দিল্লি সরকার এই কাজ করলেও কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকার যে তা করবে না, তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন আদিত্যনাথ। তিনি বলেন, “আমরা জঙ্গিদের খুঁজে বের করার কাজ করছি। জঙ্গিদের খুঁজে গুলি মারছি। বিরিয়ানি দিচ্ছি না।”

শনিবার দিল্লির কারাওয়াল নগর, আদর্শ নগর, নারেলা, রোহিনী এলাকায় যতগুলি সভা যোগী করেন, সবকটি সভাতেই তাঁর বক্তব্যের প্রধান বিষয় ছিল পাকিস্তান, বিরিয়ানি ও বুলেট। তিনি বলেন, “এর আগে কাশ্মীরের কিছু মানুষ পাকিস্তানের কাছ থেকে টাকা নিয়ে পাথর ছুঁড়ত। কেজরিওয়ালের দল, কংগ্রেস তাদের সমর্থন করত। কিন্তু কাশ্মীরের উপর থেকে স্পেশ্যাল স্ট্যাটাস তুলে নেওয়ার পর থেকে সবকিছু বন্ধ হয়ে গিয়েছে। একইভাবে পাকিস্তানের জঙ্গিদের নরকে পাঠাচ্ছেন আমাদের জওয়ানরা। কংগ্রেস ও কেজরিওয়াল ওদের বিরিয়ানি খাওয়াত। আমরা ওদের গুলি খাওয়াই।”

প্রচারে এসে কেজরিওয়ালকে একের পর এক বিষয়ে নিশানা করেন যোগী আদিত্যনাথ। তিনি বলেন, “কেজরিওয়াল মেট্রো, পরিষ্কার জল কিংবা বিদ্যুৎ চান না। তিনি শুধু শাহিনবাগ চান। আপনারাই ঠিক করুন, আপনারা কী চান। মেট্রো, জল, না শাহিনবাগ। কেজরিওয়াল বিক্ষোভকারীদের বিরিয়ানি খাওয়ানোর জন্য টাকা খরচ করছেন, দিল্লির উন্নয়নের জন্য নয়।”

পূর্ব দিল্লির কারাওয়াল নগর চকে এক প্রচারসভায় বিজেপি নেতা আদিত্যনাথ বলেন, “দিল্লির বিভিন্ন জায়গায় যে আন্দোলন হচ্ছে তা নাগরিকত্বের জন্য নয়। তা ভারতকে এক গ্লোবাল পাওয়ার হওয়া থেকে আটকানোর জন্য করা হচ্ছে। এদের পূর্বপুরুষরাই ভারত ভাগ করেছিল। তাই আমাদের ‘এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত’ হওয়া থেকে আটকানোর চেষ্টা করছে ওরা।”

এর আগেও অবশ্য শাহিনবাগ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন কেজরিওয়াল। কয়েক দিন আগে তিনি বলেন, দিল্লির ঠান্ডার মধ্যে শাহিনবাগে মহিলাদের জোর করে তাদের বাড়ির পুরুষরা বসে থাকতে বাধ্য করেছে। বিজেপি সাংসদ অনুরাগ ঠাকুরও একটি নির্বাচনী সভা থেকে নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদীদের গুলি মারার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তারপরেই তাঁকে নির্বাচনী প্রচার থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেয় নির্বাচন কমিশন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More