রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪

মেট্রো স্টেশনের লিফটে ঘনিষ্ঠ যুবক-যুবতী, ভিডিও ভাইরাল হতেই তদন্তের নির্দেশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো : মেট্রো স্টেশনের লিফটে করে বারবার ওঠা নামা করছেন যুবক-যুবতী। লিফটের মধ্যে হচ্ছেন ঘনিষ্ঠ। সম্প্রতি এই ধরণের এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিও ভাইরাল হতেই তড়িঘড়ি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

ঘটনাটি হায়দরাবাদ মেট্রো রেল সার্ভিসের অধীনে থাকা কোনও একটি স্টেশনের। ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, যুবক-যুবতী মেট্রোর লিফটের মধ্যেই ঘনিষ্ঠ হচ্ছেন। বারবার তিনবার এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তাঁরা। সবটাই ধরা পড়েছে লিফটের মধ্যে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরাতে। প্রথম দু’বার তাঁরা বুঝতে পারেননি, ভিতরে কোনও ক্যামেরা আছে। তৃতীয়বার বুঝতে পারার পরেই স্টেশন থেকে বেরিয়ে যান তাঁরা।

এই ভিডিও ছড়িয়ে পড়তেই সোশ্যাল মিডিয়াতে সমালোচনার ঝড় ওঠে। হায়দরাবাদ মেট্রো রেলের মুখপাত্র জানিয়েছেন, “আমরা পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখছি। কীভাবে এই ভিডিও লিক হলো তারও খোঁজ করছি। যুবক-যুবতীর খোঁজ চলছে। এভাবে মেট্রোর লিফট অপব্যবহার করার জন্য তাঁদের শাস্তি পেতে হবে।”

মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, সাধারণত মেট্রো স্টেশনে বয়স্ক-বয়স্কা ও প্রতিবন্ধীদের জন্য এই লিফট থাকে। তাঁদের সুবিধার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়। কিন্তু যুবক-যুবতী এই লিফটের যে অপব্যবহার করেছেন, তা নিন্দনীয়।

কিন্তু তারপরেও উঠছে প্রশ্ন। মেট্রোর কন্ট্রোল রুমে কি সিসিটিভির উপর নজর চালানোর জন্য কর্মী থাকেন না? যদি থাকেন, তাহলে সেই মুহূর্তেই তো তিনি নিরাপত্তারক্ষীদের খবর দিতে পারতেন। তাহলে পরে আর খোঁজ করতে হতো না। পুরো ঘটনায় মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষের দুর্বলতাও বেরিয়ে আসছে বলেই মত নেটিজেনদের একাংশের।

মাস খানেক আগে দিল্লির এক মেট্রো স্টেশনেও একই ঘটনা ঘটেছিল। তারপরেই সেখানে কর্তব্যরত নিরাপত্তারক্ষীদের বলার পরেই লিফটের ভেতর সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়।

৩০ এপ্রিল কলকাতার দমদমগামী এক চলন্ত মেট্রোতে ঘনিষ্ঠ থাকার অভিযোগে এক তরুণ-তরুণীকে মারধর করেছিলেন বেশ কিছু প্রৌঢ়। প্রতিবাদে সরব হয়েছিল যুব-সমাজ। প্রশ্ন উঠেছিল ব্যক্তি-স্বাধীনতার। যদিও হায়দরাবাদের এই ঘটনার পর অবশ্য সে ধরণের কোনও প্রতিবাদ আসছে না যুব সমাজের কাছ থেকে।

আরও পড়ুন

নাগেশ্বর রাওয়ের স্ত্রীর কোম্পানিতে পুলিশের হানা? অস্বীকার প্রাক্তন সিবিআই কর্তার

Shares

Comments are closed.