১৫০০ কিমি পাল্লার ব্রাহ্মস নিয়ে পরীক্ষা শুরু, লাল সেনাকে কুপোকাৎ করতে বড় অস্ত্র ভারতের

রাশিয়া যে মাঝারি পাল্লার সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইল বানিয়েছিল, দেশীয় প্রযুক্তিতে তারই উন্নত সংস্করণ হল ব্রাহ্মস। শব্দের চেয়ে দ্রুত গতি। যুদ্ধবিমান, যুদ্ধজাহাজ, সাবমেরিন থেকে হেলিকপ্টার, অ্যাটাক কপ্টার তার ত্রিসীমানায় আসা শত্রুপক্ষের যে কোনও সামরিক অস্ত্রকে নিমেষে ধ্বংস করতে পারে ব্রাহ্মস।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শব্দের চেয়ে প্রায় তিন গুণ বেশি গতি। ভারতের ব্রহ্মাস্ত্র ব্রাহ্মস ক্ষেপণাস্ত্রের শক্তি আরও বাড়ানোর চেষ্টা করছে প্রতিরক্ষা গবেষণা সংস্থা ডিআরডিও। ৪০০ কিলোমিটার পাল্লার ল্যান্ড অ্যাটাক ভার্সনের পরীক্ষায় ফের সাফল্য মিলেছে। এবার মিসাইলের ক্ষমতা ১৫০০ কিলোমিটার পাল্লা অবধি বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

রাশিয়া যে মাঝারি পাল্লার সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইল বানিয়েছিল, দেশীয় প্রযুক্তিতে তারই উন্নত সংস্করণ হল ব্রাহ্মস। শব্দের চেয়ে দ্রুত গতি। যুদ্ধবিমান, যুদ্ধজাহাজ, সাবমেরিন থেকে হেলিকপ্টার, অ্যাটাক কপ্টার তার ত্রিসীমানায় আসা শত্রুপক্ষের যে কোনও সামরিক অস্ত্রকে নিমেষে ধ্বংস করতে পারে ব্রাহ্মস। ভূমি, আকাশ, জল তিন জায়গায় থেকেই ছোড়া যায় এই ক্ষেপণাস্ত্র। এর বেগ এতটাই বেশি যে একবার টার্গেটের দিকে ধাওয়া করলে মাঝপথে তাকে থামিয়ে দেওয়া প্রায় অসম্ভব।

India now working on 1,500-km range BrahMos supersonic cruise missile

ভারতের সশস্ত্র বাহিনীর হাতে থাকা ব্রাহ্মস পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী ও দ্রুতগতির অ্যান্টি-শিপ ক্রুজ মিসাইল। এটি সারফেস-টু-সারফেস, এয়ার-টু-সারফেস এবং যুদ্ধজাহাজ থেকেও ছোড়া যায়। ল্যান্ড লঞ্চড, শিপ লঞ্চড ও এয়ার লঞ্চড ভ্যারিয়ান্ট রয়েছে। প্রতিরক্ষার তিন স্তম্ভ স্থলবাহিনী, বায়ুসেনা ও নৌবাহিনীর হাতে রয়েছে ব্রাহ্মস। এর গতি ঘণ্টায় ৩৭০০ কিলোমিটার। ব্রাহ্মসের হাইপারসনিক ভার্সন ব্রাহ্মস-২ নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে। প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ক্ষেপণাস্ত্র আগে ২৯০ কিলোমিটার পাল্লা অবধি নিক্ষেপ করা যেত। অর্থাৎ ২৯০ কিলোমিটার রেঞ্জের মধ্যে যে কোনও টার্গেটে নির্ভুল নিশানা করতে পারত ব্রাহ্মস। পরে এর পাল্লা বাড়িয়ে ৪০০ কিলোমিটার করা হয়। এই পাল্লার ল্যান্ড অ্যাটাক ভার্সনও আছে আবার ন্যাভাল ভার্সনও আছে। তবে সাম্প্রতিক সময়ের বিচারে ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা আরও বাড়ানোর প্রয়োজন পড়েছে।

গত বছর ব্রাহ্মসের নতুন ভ্যারিয়ান্টের পাল্লা বাড়িয়ে ৫০০ কিলোমিটার করেছিল ভারত। বর্তমানে রাশিয়ার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে এই ক্রুজ মিসাইলের পাল্লা ৬০০ কিলোমিটারের বেশি রাখার চেষ্টা করার হচ্ছে। প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের মতে, ব্রাহ্মসের নতুন প্রজন্ম শুধু দুরন্ত গতিতে ছুটবেই না একেবারে লক্ষ্যবস্তুর নাকের ডগায় গিয়ে আঘাত করবে।

গত মাসেই ব্রাহ্মসের ন্যাভাল ভার্সনের সফল উৎক্ষেপণ হয়েছে। আরব সাগরে ভারতীয় নৌবাহিনীর স্টেলথ ডেস্ট্রয়ার আইএনএস চেন্নাই থেকে ছোড়া হয় ব্রাহ্মস ক্ষেপণাস্ত্র। শব্দের চেয়ে দ্রুত বেগে ছুটে গিয়ে সেটি নিখুঁত নিশানায় আঘাত করে লক্ষ্যবস্তুকে। সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইল ব্রাহ্মসের এয়ার লঞ্চড ভার্সনের পরীক্ষাতেও সাফল্য পেয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা।সুখোই ফাইটার জেট থেকেও নির্ভুল নিশানায় ছুটে গিয়ে লক্ষ্যে আঘাত করেছে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী এই ক্ষেপণাস্ত্র।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More