লাগামছাড়া দৈনিক সংক্রমণ, গ্রাফ ঠেকল ১৭ হাজারে, চিন্তা বাড়াচ্ছে মহারাষ্ট্র

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তৃতীয় দফায় করোনার টিকাকরণ শুরু হতে যাচ্ছে দেশে। কিন্তু সংক্রমণ বাঁধভাঙা। করোনা পরিস্থিতি যতটা নিয়ন্ত্রণে এসেছিল, মহারাষ্ট্রের নতুন সংক্রমণে তা ফের লাগামছাড়া হয়ে গেছে। চিন্তা বাড়াচ্ছে মহারাষ্ট্র, কেরল, ছত্তীসগড়, মধ্যপ্রদেশ, কর্নাটক, গুজরাট, পাঞ্জাবের করোনা পরিস্থিতি। দৈনিক করোনা গ্রাফ বেড়েই চলেছে। নতুন সংক্রমণ ১০ হাজারের কোঠা থেকে এক লাফে ১৭ হাজারে গিয়ে ঠেকেছে।

দেশের সার্বিক করোনা চিত্র এখন যথেষ্টই উদ্বেগের কারণ। সংক্রমণের দ্বিতীয় ধাক্কা আসতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে। অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে দেশে। একসময় যা ১ লাখ ২০ হাজারে গিয়ে ঠেকেছিল, তাই এখন দেড় লাখের চৌকাঠ পেরিয়ে গেছে। ভাইরাস সক্রিয় রোগীর সংখ্যা গত ২৪ ঘণ্টায় আরও হাজার চারেক বেড়েছে।

করোনায় মৃত্যু বাড়ছে। কিছুদিন আগেই দৈনিক মৃত্যু একশো জনের নীচে নেমে গিয়েছিল। এখন ফের মৃত্যুহার বেড়েছে। কেন্দ্রের হিসেব বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসের সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা ১৩৮ জন। মৃত্যুহারও দেড় শতাংশ ছুঁতে চলেছে।

ভয়ঙ্কর অবস্থা মহারাষ্ট্রে। নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে আট হাজারের বেশি। রাজ্যের ওয়াশিম জেলার একটি হোস্টেলে একদিনে ১৯০ জনের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। যে এলাকায় ওই হোস্টেল রয়েছে, সেটিকে কনটেইনমেন্ট জ়োন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেব বলছে, গত সপ্তাহ থেকে মহারাষ্ট্রে কোভিড সংক্রমণের হার বেড়েছে ৮১%। দেশের জাতীয় গড়ের থেকে যা অনেক বেশি। মধ্যপ্রদেশে সংক্রমণের হার বৃদ্ধি হয়েছে ৪৩%, পাঞ্জাবে ৩১%, জম্মু ও কাশ্মীরে ২২%, ছত্তীসগড়ে ১৩% ও হরিয়ানায় ১১%। দিল্লিতে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে চলে এলেও গত কয়েকদিনে ফের সংক্রমণের হার বেড়েছে ৪.৭%।

কোভিড টেস্ট ও কনট্যাক্ট ট্রেসিংয়ে ধরা পড়েছে, করোনার একটি নতুন স্ট্রেন ছড়িয়েছে মহারাষ্ট্রের কয়েকটি জেলায়। ভাইরোলজিস্টরা বলছেন, মহারাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়া এই নতুন স্ট্রেনের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া করোনার নতুন প্রজাতির মিল রয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার স্ট্রেন মারাত্মক সংক্রামক, দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই চিন্তা বেড়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের।

দেশে এক কোটি ২৬ লাখের বেশি টিকাকরণ হয়েছে আজ অবধি। স্বাস্থ্যকর্মীদের পরে পুলিশ, প্রশাসন ও ফ্রন্টলাইন কর্মীদের টিকা দেওয়া হচ্ছে। আগামী ১ মার্চ থেকে ৬০ বছরের বেশি প্রবীণ ও ৪৫ বছরের বেশি কো-মর্বিডিটির রোগীদের টিকা দেওয়া হবে। বয়স্কদের টিকাকরণের সুবিধার জন্য কো-উইন অ্যাপের নতুন ভার্সন কো-উইন ২.০ চালু করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই নয়া মডেলে সেলফ-রেজিস্ট্রেশনের সুবিধা থাকবে এবং পছন্দমতো টিকাকরণ কেন্দ্র বেছে নেওয়া যাবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More