অক্টোবরে বাড়ল জ্বালানি তেলের চাহিদা, ৮ মাসে প্রথমবার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনা সংক্রমণের পরে কমে গিয়েছিল জ্বালানি তেলের চাহিদা। কিন্তু ধীরে ধীরে বাড়ছে চাহিদা। আর তার প্রভাব দেখা গেল অক্টোবর মাসে। ফেব্রুয়ারি মাসের পরে ৮ মাস পরে এই প্রথমবার বাড়ল জ্বালানি তেলের চাহিদা। তার প্রভাব পড়েছে আর্থিক উন্নতিতে।

পেট্রোলিয়াম ও ন্যাচারাল গ্যাস মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে জ্বালানি তেলের চাহিদা ২.৫ শতাংশ বেড়েছে। চলতি বছর অক্টোবর মাসে মোট ১৭.৭৮ মিলিয়ন টন জ্বালানি তেল বিক্রি হয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসের তুলনায় তা ১৫ শতাংশ বেশি।

এই বিষয়ে মুডি’জ ইনভেসটর্স সার্ভিসের একটি ইউনিট আইসিআরএ-র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট কে রবিচন্দ্রন জানিয়েছেন, “জিএসটি কালেকশন, বিদ্যুতের চাহিদা প্রভৃতিও বাড়তে শুরু করেছে। কোভিডের পরিমাণও কমেছে। তার ফলে অর্থনীতিও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে। গণ পরিবহণের সংখ্যাও বাড়ছে। আর তাই জ্বালানি তেলের চাহিদাও বাড়ছে। আগামী দিনে তা আরও বাড়বে।”

সেপ্টেম্বর মাস থেকে ভারতের করোনা সংক্রমণের পরিমাণ দিন দিন কমছে। যদিও এখনও বিশ্বে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় এখনও আমেরিকার পরেই রয়েছে ভারত। দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৭ লাখের বেশি। কিন্তু করোনা সংক্রমণের পরে ধীরে ধীরে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বাড়তে থাকায় অক্টোবর মাস থেকে চাহিদা আরও বাড়ছে।

কোনও দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভিত্তি হল জ্বালানি তেলের চাহিদা। তার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হল ডিজেলের চাহিদা। ভারতে মোট জ্বালানি তেলের মধ্যে ৪০ শতাংশ থাকে ডিজেল তেলের চাহিদা। ডিজেলের চাহিদাও গত বছরের তুলনায় ৭.৪ শতাংশ বেড়ে ৬.৯৯ মিলিয়ন টন হয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসের তুলনায় তা ২৭ শতাংশ বেড়েছে। তার সঙ্গে গত বছরের তুলনায় পেট্রোলের চাহিদা ৪.৩ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২.৬৫ মিলিয়ন টন। অন্যদিকে সেপ্টেম্বর মাসের তুলনায় তা বেড়েছে ৮.২ শতাংশ।

বেড়েছে রান্নার গ্যাসের চাহিদাও। গত বছরের তুলনায় রান্নার গ্যাসের চাহিদা ৩ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২.৪২ মিলিয়ন টন। গত বছরের তুলনায় তা বেড়েছে ৬.৬ শতাংশ। এছাড়া ন্যাপথা, বিটুমেন বিক্রিও বেড়েছে গত বছরের তুলনায়। আর এই বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় ভারতের আর্থিক উন্নতিও হচ্ছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রক।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More