দেশে কি কথা বলার, লেখার, প্রশ্ন করার স্বাধীনতা আছে, কটাক্ষ সনিয়া গান্ধীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত কাল ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস পালিত হয়েছে ভারতে। লালকেল্লায় পতাকা উত্তোলনের পরে একগুচ্ছ প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু তারপরেই মোদী সরকারকে আক্রমণ করলেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী। বললেন, এই সময়টা ভারতীয় গণতন্ত্রের কাছে কঠিন সময়।

নিজের স্বাধীনতা দিবসের বার্তায় সনিয়া গান্ধী বলেন, “দেখে মনে হচ্ছে বর্তমানে সরকার গণতান্ত্রিক কাঠামো, সংবিধান ও সংস্কৃতির ঠিক বিপরীতে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এটা ভারতীয় গণতন্ত্রের কাছে কঠিন সময়।”

সনিয়া আরও বলেন, “বিরোধী দল হিসেবে এটা আমাদের কর্তব্য, যে আমরা ভারতের গণতান্ত্রিক স্বাধীনতা অক্ষুন্ন রাখার জন্য যতটা পরিশ্রম করার করব। আজ কি ভারতে লেখার, কথা বলার, প্রশ্ন করার, ভিন্ন মত পোষণ করার, সম্মতি না দেওয়ার অধিকার রয়েছে?”

শনিবার লালকেল্লায় দাঁড়িয়ে ১৫ জুন পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় জওয়ানদের উপর চিনা সেনার হামলার প্রসঙ্গ তুলে আনেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, “এলওসি অর্থাৎ নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে এলএসি অর্থাৎ প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পর্যন্ত যখনই ভারতকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে, আমাদের জওয়ানরা তার যোগ্য জবাব দিয়েছেন। যে ভাষায় তারা বোঝে, সেই ভাষাতেই তাদের জবাব দেওয়া হয়েছে। আমাদের জওয়ানরা কী করতে পারেন, আমাদের দেশ কী করতে পারে, তা লাদাখে গোটা বিশ্ব দেখেছে। আজ আমি লালকেল্লা থেকে সেই সব বীর সেনানিদের শ্রদ্ধা জানাই।”

নিজের বার্তায় সেই প্রসঙ্গ তুলে আনেন সনিয়া গান্ধীও। তিনি বলেন, ভারতের ২০ জওয়ান শহিদ হওয়ার পরে ৬০ দিন পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু তাঁদের বলিদানের কী জবাব দেওয়া হয়েছে।

করোনা সংক্রমণ ও দেশের অর্থনীতির প্রসঙ্গও তুলে ধরেন সনিয়া। তিনি বলেন, “আমি সম্পূর্ণ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি আমরা সবাই মিলে একদিন এই অতিমারীকে হারিয়ে জয়ী হব।” অবশ্য ভারতের অর্থনীতি নিতে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন সনিয়া।

শনিবার কংগ্রেস দফতরে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দেননি সনিয়া গান্ধী। বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এ কে অ্যান্টনি পতাকা উত্তোলন করেন। রাহুল গান্ধী, আহমেদ পটেল, গুলাম নবি আজাদ, আনন্দ শর্মা, অধীর রঞ্জন চৌধুরী, কে সি বেণুগোপাল, রণদীপ সুরজেওয়ালার মতো কংগ্রেস নেতারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More