করোনা হাসপাতালে হিন্দু-মুসলমান ওয়ার্ড! কাঠগড়ায় গুজরাতের হাসপাতাল, অস্বীকার মন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বেনজির অভিযোগ উঠল গুজরাতের একটি হাসপাতালের বিরুদ্ধে। আমদাবাদের সিভিল হাসপাতালে নাকি করোনা আক্রান্ত রোগীদের হিন্দু-মুসলমান ওয়ার্ডে ভাগ করে রাখা হয়েছে। গোটা ঘটনায় অস্বস্তিতে পড়ে গিয়েছে গুজরাত সরকার। যদিও স্বাস্থ্যমন্ত্রী নীতীন পটেল বলেছেন, এমন কোনও নির্দেশিকা হয়েছে বলে তিনি জানেন না।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে এই খবর প্রকাশ হয়েছে হাসপাতাল সুপারের বক্তব্য দিয়ে। শুধু করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ওই হাসপাতালে ১২০০ বেডের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে৷ হাসপাতালের সুপার গুণবন্ত রাঠোর বলেন, ‘আমরা সাধারণত পুরুষ এবং মহিলা রোগীদের আলাদা ওয়ার্ডে রাখি৷ কিন্তু এক্ষেত্রে আমরা হিন্দু এবং মুসলিম রোগীদের আলাদা ওয়ার্ডে রাখার ব্যবস্থা করেছি৷” কেন এমন সিদ্ধান্ত? হাসপাতাল সুপারের জবাব, “এ ব্যাপারে কিছু প্রশ্ন থাকলে সরকারকে করুন৷ আমরা শুধু নির্দেশিকা পালন করছি।”

নিয়ম অনুযায়ী, উপসর্গ রয়েছে এমন রোগী এবং যাঁদের করোনা ধরা পড়েছে তাঁদের আলাদা ওয়ার্ডে রাখার কথা৷ এখনও পর্যন্ত ওই হাসপাতালে ভর্তি ১৮৬ জন রোগীর মধ্যে ১৫০ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে৷ আক্রান্তদের মধ্যে চল্লিশজন মুসলিম রয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ রবিবার রাতে অন্য ওয়ার্ডে নিয়ে যাওয়া হয় বলে খবর।

উপমুখ্যমন্ত্রী এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী নীতিন প্যাটেল জানিয়েছেন, ধর্মের ভিত্তিতে রোগীদের আলাদা ওয়ার্ডের রাখার অভিযোগের তদন্ত করে দেখা হবে৷ পাশাপাশি আমদাবাদের কালেক্টর কে কে নিরালাও জানিয়েছেন, এরকম কোনও নির্দেশ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে দেওয়া হয়নি৷

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More