নীতীশই মুখ্যমন্ত্রী, এনডিএ বৈঠকে সিদ্ধান্ত, আগামীকাল শপথ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জল্পনার অবসান। চতুর্থবারের জন্য বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসতে চলেছেন জনতা দল ইউনাইটেড নেতা নীতীশ কুমার। রবিবার এনডিএ বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, নীতীশের উপরেই আস্থা রাখছেন তাঁরা। বৈঠক শেষেই বিহারের রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছেন নীতীশ কুমার। জানা গিয়েছে, আগামীকাল শপথ নেবেন নীতীশ।

এবারের নির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে জিতেছে এনডিএ জোট। ২৪৩টি আসনের মধ্যে ১২৫টি আসন পেয়েছে তারা। অন্যদিকে মহাজোট পেয়েছে ১১০টি আসন। দল হিসেবে যদিও তৃতীয় স্থানে পৌঁছে গিয়েছে জনতা দল ইউনাইটেড। তারপরেই জল্পনা শুরু হয়, তবে কি এবার আর নীতীশকে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেখা হবে না। যদিও বিজেপির তরফে বারবার বলা হয়েছে, নীতীশই মুখ্যমন্ত্রী। সম্প্রতি নীতীশ কুমার নিজেই জল্পনা বাড়িয়ে দেন। তিনি বলেন, এনডিএ বৈঠকেই ঠিক হবে কে মুখ্যমন্ত্রী হবেন। সেই জল্পনারই অবসান হল।

এদিনের বৈঠকে এনডিএ-র জয়ী বিধায়করা সর্বসম্মতোক্রমে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নীতীশ কুমারের নাম তুলে ধরেন। কেউই তাঁর বিরোধিতা করেননি। শেষ পর্যন্ত নীতীশ কুমারকেই বিহারের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তারপরেই রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছেন তিনি।

শুধু বিহারের মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করাই নয়, এনডিএ জোট ছেড়ে বেরিয়ে আসা লোক জনশক্তি পার্টির ভবিষ্যৎ কী হবে, সেই বিষয়ে সিদ্ধান্তও বিজেপি নেবে বলে জানিয়েছেন নীতীশ কুমার। বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের সামনে নীতীশ কুমার বলেন, “যারা ভোট কেটেছে তাদের ভাগ্য বিজেপি ঠিক করবে।” কারণ নির্বাচনী প্রচারে নীতীশ মুক্ত বিহারের ডাক দিয়েছিলেন চিরাগ পাসোয়ান। তাই এবার তিনি ফের জোটে ফিরবেন কিনা সেটা সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করছে বিজেপির উপরেই। জেডিইউ এই ব্যাপারে কিছু বলবে না বলেই জানিয়েছেন তিনি।

ভোটের আগেই এনডিএ জোট ছেড়ে বেরিয়ে আসে এলজেপি। দলের নেতা তথা প্রয়াত কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ানের ছেলে চিরাগ পাসোয়ান জানান, নীতীশ কুমারকে আর মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান না তিনি। তাই জোট ছাড়ছে এলজেপি। তবে বিজেপির প্রতি তাঁর ও তাঁর দলের আনুগত্যের কথা বারবার বলেন চিরাগ। এমনকি তাঁর বুক চিড়লে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি দেখা যাবে বলেও জানান চিরাগ।

সাম্প্রতিক নির্বাচনে এলজেপি মাত্র একটি আসন পেয়েছে ঠিকই কিন্তু তারা জনতা দল ইউনাইটেডের একটা বড় পরিমাণ ভোট কেটেছে। আর তার ফলেই অন্তত ৩০টি আসন হাতছাড়া হয়েছে তাদের। তার ফলেই ২০১৫ সালের ৭১টি আসন থেকে এবার ৪৩টি আসনে নেমে এসেছে জেডিইউ। আর তার ফলে এবার বিজেপির উপরেই নির্ভর করতে হচ্ছে নীতীশ কুমারকে। তবে চিরাগের ভবিষ্যৎ যাই হোক না কেন, নীতীশই যে চতুর্থবারের জন্য বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন, তা নিশ্চিত হয়ে গেল এদিনের বৈঠকে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More