কিছুতেই করোনা পরীক্ষা করাব না! বিহারের রেলস্টেশনে পড়িমরি দৌড় যাত্রীদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ট্রেন থেকে প্ল্যাটফর্মে পা দেওয়ার অপেক্ষা। নেমেই পড়িমরি করে দৌড়চ্ছেন যাত্রীরা। কারও পিঠে ঢাউস ব্যাগ, কারও হাতে ঝোলা। কেউ ছোট বাচ্চার হাত ধরেই ঊর্ধ্বশ্বাসে ছুটছেন। দলে দলে মানুষ ছুটে চলেছেন প্ল্যাটফর্মে। যে করেই হোক নজর বাঁচিয়ে বাইরে বেরোতেই হবে। না হলেই করোনা পরীক্ষা মাস্ট, আর উপসর্গ ধরা পড়লে তো কথাই নেই। সোজা আইসোলেশন।

বিহারের রেলস্টেশনগুলিতে গত কয়েকদিনের ছবি এমনটাই। ট্রেন নামতেই হুড়মুড়িয়ে নেমে দলে দলে যাত্রীদের ছুটোছুটি করতে দেখা গিয়েছে। পালানোর জন্য যেন তর সইছে না আর। স্বাস্থ্যকর্মীরা যদিও বা কাওকে ধরে ফেলেন, তাহলে কাঁচুমাচু মুখ করে তাঁর একেবারে কেঁদে ফেলার মতো দশা। সবই ধরা পড়েছে স্টেশনের সিসিটিভি ক্যামেরাগুলিতে, আর এই ভিডিও এখন বেশ ভাইরাল। কোভিড টেস্ট করাতে জনগণের এই অনীহা উদ্বেগ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের।

বিহারে করোনা বাড়ছে। তাই রেলস্টেশন, বাসস্টপ ইত্যাদি জনসমাগমের জায়গাগুলোতে করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করেছে নীতীশ কুমার সরকার। বিশেষত ভিন রাজ্যের যাত্রীরা ট্রেনে চেপে এলে তাঁদের কোভিড টেস্ট করাতেই হবে। আর গণ্ডগোলটা বেঁধেছে সেখানেই।

স্টেশন চত্বরে করোনা পরীক্ষা করানোর দায়িত্বে থাকা এক প্রশাসনিক কর্তা বলছেন, দেশে যেভাবে করোনা বাড়ছে তাতে আবারও লকডাউনের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। তাই মুম্বই, পুণে, দিল্লি থেকে পরিযায়ী শ্রমিকরা দলে দলে নিজের বাড়ির আসছেন। তাঁদের থেকে যাতে সংক্রমণ না ছড়ায় সে জন্যই স্টেশনগুলিতে কোভিড টেস্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু চেষ্টাই বৃথা। করোনা পরীক্ষা করাতে রাজি নন কেউই। তাঁদের ভয় সামান্য উপসর্গ ধরা পড়লেই আইসোলেশনে থাকতে হবে দু’সপ্তাহ। বাড়ি ফিরতে পারবেন না কেউ। এই ভয়েতেই এমন লুকোচুরি খেলা শুরু হয়েছে। শুরুতে ধরে ধরে কোভিড টেস্ট করাচ্ছিলেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। তাই এখন গা বাঁচাতে দৌড়ে পালাবার কৌশলই নিয়েছেন যাত্রীরা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More