তাণ্ডব বিতর্ক: গ্রেফতার করা যাবে না আমাজন প্রাইম প্রধান অপর্ণা পুরোহিতকে, জানাল সুপ্রিম কোর্ট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সুপ্রিম কোর্টের রায়ে স্বস্তি পেলেন আমাজন প্রাইম ইন্ডিয়ার কর্ণধার অপর্ণা পুরোহিত। ‘তাণ্ডব’ ওয়েব সিরিজ মামলায় অপর্ণার বিরুদ্ধে মামলা চলছিল এতদিন। তাঁর জামিনের আবেদন আগেই খারিজ করে দিয়েছিল এলাহাবাদ হাইকোর্ট। আজ, শুক্রবার শীর্ষ আদালত তার রায়ে জানিয়েছে, অপর্ণা পুরোহিতকে গ্রেফতার করা যাবে না। তবে তদন্তে পূর্ণ সহযোগিতা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আমাজন প্রাইম ইন্ডিয়ার কর্ণধারকে।

ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ‘অ্যামাজন প্রাইম’-এ ‘তাণ্ডব’ ওয়েবসিরিজ মুক্তি পাওয়ার পরে আক্ষরিক অর্থেই তাণ্ডব শুরু হয় সারা দেশজুড়েই। অভিযোগ ওঠে, ওয়েবসিরিজে হিন্দু দেবদেবীকে অপমান করা হয়েছে। নির্দিষ্ট ধর্মাবলম্বী মানুষের ধর্মীয় ভাবাবেগ আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে এর ফলে। ক্ষোভের আগুন নেভাতে প্রকাশ্যে ক্ষমাও চান পরিচালক আলি আব্বাস জাফর। কিন্তু তাতেও চিড়ে ভেজেনি। কখনও পরিচালকের মাথা কেটে ফেলা হোক, কখনও বা জিভ কেটে ফেলা হোক, প্রকাশ্যেই এইসব নানা হুমকি আসছে।

ওটিটি প্ল্যাটফর্মের ‘কনটেন্ট চিফ’ অপর্ণা পুরোহিত। সমস্ত বিষয়বস্তু দেখার দায়িত্ব তাঁর ওপরেই। অপর্ণার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ। গত মাসেই প্রায় ঘণ্টা চারেক ধরে জেরা করা হয় তাঁকে। অপর্ণার আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে দেয় এলাহাবাদ হাইকোর্ট। বিচারপতির বক্তব্য, তদন্তে কোনও সহযোগিতাই করছেন না অপর্ণা পুরোহিত।

আজ শীর্ষ আদালতের বিচারপতি অশোক ভূষণ বলেছেন, কেন্দ্র যে বিধিগুলো দেখাচ্ছে সেগুলো নির্দেশিকা মাত্র, ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার তেমন কোনও বিধান নেই। আদালত তার নিয়ম মেনেই চলছে। কেন্দ্রীয় সরকারকে আরও পোক্ত প্রমাণ পেশ করতে হবে।

তাণ্ডব ওয়েব সিরিজ বন্ধ করার জন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরের কাছে চিঠি লিখেছেন বিজেপি সাংসদ মনোজ কোটাক। তাঁর বক্তব্য, এই ধরনের ওয়েব সিরিজগুলিতে উদ্যাম যৌনতা দেখানো হয়। হিংসা, মাদক, ঘৃণা এবং কিছু সময় তো হিন্দু ধর্মকেও অবমাননা করা হয়। শুধু তাণ্ডব নয়, কার্যত গোটা বলিউডকেই এই ধরনের সিনেমা বা সিরিজ তৈরি থেকে বিরত থাকার হুমকি দিয়েছেন তিনি।

কী দেখানো হয়েছে তাণ্ডব ওয়েব সিরিজে? সিরিজের প্রথম পর্বটি নিয়েই সমস্যা ও বিতর্ক তৈরি হয়েছে। ওই পর্বে দেখানো হয়েছে, অভিনেতা মহম্মদ জিশান আয়ুব বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াতে গিয়ে ভগবান শিবের প্রসঙ্গ তোলেন। তিনি বলেন, তোমরা কার থেকে স্বাধীনতা চাও? এরপর ওই দৃশ্যে দেখানো হয় পড়ুয়ারা স্টেজে উঠে আসার পরই ‘নারায়ণ নারায়ণ’ ধ্বনি ওঠে। প্রথম পর্বের এই অংশটি নিয়েই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। দাবি করা হয়েছে, ভগবান শিবকে খর্ব করে দেখানো হয়েছে এখানে।

তার পর থেকেই দর্শকদের একাংশের ক্ষোভের মুখে পড়েছে কলাকুশলী-সহ নির্মাতারা। এমনকী তাঁরা নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে একটি বিবৃতিও জারি করেছেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More