‘আমাকে মেরেছে, ক্যামেরা ভেঙে দিয়েছে, ওরা সত্যিটা সামনে আসতে দেবে না’, ছাড়া পেয়ে বললেন মনদীপ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২৪ ঘণ্টা কেটেছে জামিনে ছাড়া পেয়েছেন তিনি। জেল থেকে বেরিয়েই নতুন উদ্যোমে কাজ শুরু করার কথাও বলেছেন। কৃষক আন্দোলনের খবর করতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়া সাংবাদিক মনদীপ পুনিয়া বলেছেন, তাঁর ওপর নির্যাতন চালিয়েছে পুলিশ। মারধর করা হয়েছে। তাঁর মুখ বন্ধ রাখার চেষ্টাও হয়েছে। মনদীপের দাবি, “সত্যিটা ওরা কোনওদিনও সামনে আসতে দেবে না”।

ফ্রিল্যান্স সাংবাদিকতা করেন মনদীপ। ‘ক্যারাভ্যান ম্যাগাজিন’-এও লেখা ছাপে তাঁর। কৃষক আন্দোলনের খবর ছেপে ইদানীং বেশ পরিচিত মুখ মনদীপ পুনিয়া। সিংঘু সীমান্ত থেকে তাঁকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। তোলা হয়েছিল দিল্লি আদালতে। মঙ্গলবার দিল্লি আদালত তাঁকে জামিন মঞ্জুর করে। সদ্য জেল থেকে বেরনো সাংবাদিক বলেছেন, সেদিন কীভাবে তাঁকে গ্রেফতার করে নিয়ে গিয়েছিল পুলিশ। কীভাবে তাঁর ওপর অত্যাচার করা হয়।

৪৩ বছরের সাংবাদিক বলেছেন, সিংঘুতে কৃষকদের তাঁবুর কাছাকাছি ভিডিও করছিলেন তিনি। সে সময় কয়েকজন বিক্ষোভকারী চাষি সেখান দিয়ে যাচ্ছিলেন। তাঁদের ওপর প্রায় ঝাঁপিয়ে পড়ে পুলিশ। মনদীপের অভিযোগ, তাঁর পাশেই দাঁড়িয়ে ছবি তুলছিলেন আরও এক সাংবাদিক ধর্মেন্দ্র সিং। তাঁকে আটক করে পুলিশ। ক্যামেরা কেড়ে নেয়। মনদীপ প্রতিবাদ করলে তাঁকেও গ্রেফতার করা হয়। তাঁকে দেখিয়ে পুলিশ কর্মীরা বলাবলি করছিলেন, “এই হল মনদীপ পুনিয়া। একেও ধরে নিয়ে চলো।”

সাংবাদিকের বক্তব্য, ব্যারিকেডের কাছ থেকে রীতিমতো টেনে হিঁচড়ে তাঁকে পুলিশের ভ্যানে তোলা হয়। তিন থেকে চারটি থানায় ঘোরানো হয় দিনভর। তাঁর ক্যামেরা ভেঙে দেয় পুলিশ। ফোন কেড়ে নেয়। এমনকি তাঁবুর ভেতর নিয়ে গিয়ে তাঁকে মারধর করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন তরুণ সাংবাদিক।

মনদীপের দাবি, রাত ২ টো নাগাদ তাঁকে মেডিক্যাল চেকআপের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু ঠিকমতো স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করার জন্য ডাক্তারদের জোর দিচ্ছিলেন পুলিশ কর্মীরা। মনদীপের বক্তব্য, ডাক্তাররা সে কথা শোনেননি। ভালভাবেই তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন তাঁরা। এরপর রাত ৩টে নাগাদ তাঁকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

জেলের ভেতরে তাঁকে দেখে খুশি হয়েছিলেন বন্দি কৃষকরা, অনেক কথা বলেছেন, এমনটাই দাবি মনদীপের। তিনি জানিয়েছেন, ৭০ বছরের বেশি বয়স্ক কৃষকরাও বন্দি জেলে। দেড়শোর বেশি বিক্ষোভকারীকে ধরে রাখা হয়েছে বলে দাবিও তাঁর।

গ্রেফতারির পরেও খবর করা থামাবেন না বলেই জানিয়েছেন মনদীপ পুনিয়া। তিনি বলেছেন, আন্দোলনের জায়গায় আবার ফিরে যাবেন। এই খবর খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তার প্রতিটি পদক্ষেপের খবর করবেন তিনি। সত্যিটা সামনে আনার চেষ্টা করবেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More