গরম তাঁবু, জল, বিদ্যুৎ, লাদাখে মাইনাস তাপমাত্রায় সেনার থাকার উন্নত বন্দোবস্ত

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পূর্ব লাদাখে মাইনাস তাপমাত্রায় সেনা জওয়ানদের থাকার উন্নত বন্দোবস্ত করা হয়েছে। গরম তাঁবু, জল ও বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। নভেম্বর মাসে এই এলাকা বরফের চাদরে ঢেকে যায়। তাপমাত্রা মাইনাস ৩০ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়ে যায়। এই অবস্থায় সেনা জওয়ানদের থাকার যাতে কোনও অসুবিধা না হয় সেই বন্দোবস্ত করা হয়েছে।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর গত কয়েক মাস ধরে চিনের সঙ্গে সীমান্ত সংঘাত চলছে ভারতের। সাধারণত শীতকালে এই এলাকা থেকে সেনা সরিয়ে নেয় দু’দেশই। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে সেনা সরানোর মনোভাব দেখাচ্ছে না চিন। আর তাই ভারতও নিজেদের অবস্থান থেকে সরতে নারাজ।

সেনার তরফে বুধবার একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, “শীতকালে মোতায়েন সেনা যাতে সব রকমের সক্রিয়তা দেখাতে পারে তার জন্য লাদাখে ইন্ডিয়ান আর্মির তরফে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করা হয়েছে।” প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক হওয়ার সম্ভাবনা কম। তাই দীর্ঘকালীন ব্যবস্থা হিসেবে এই তাঁবু তৈরি করা হয়েছে বলে খবর।

এই বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, “স্মার্ট তাঁবু তৈরি করা হয়েছে। তার মধ্যে সব ধরনের ব্যবস্থা রয়েছে। তাঁবুর ভিতরেই বিদ্যুৎ, জল, তাঁবু গরম রাখার ব্যবস্থা আছে। সোলার ও বায়ুর মাধ্যমে এই বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। ২৪ ঘণ্টা গরম জলেরও যোগান থাকবে। জওয়ানদের স্বাস্থ্য ও স্বচ্ছতার দিকেও নজর দেওয়া হয়েছে। জওয়ানদের শীতকালে যাতে কোনও অসুবিধা না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হয়েছে।”

শীতকালে লাদাখ সীমান্তে সেনা মোতায়েনের পরিকল্পনা অনেক আগে থেকেই নিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। এই বিষয়ে লাদাখে গিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন সেনাবাহিনীর প্রধান এম এম নারাভানে। কম্যান্ডার ও অন্য আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন তিনি। তারপরে ধাপে ধাপে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে পূর্ব লাদাখে। শুধু তাই নয়, রসদের যোগানও দেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে যেমন অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র রয়েছে তেমনই থাকা-খাওয়ার সরঞ্জামও রয়েছে।

মে মাস থেকে চিনের সঙ্গে সংঘাত শুরু হয়েছে ভারতীয় সেনার। জুন মাসে তা চরমে ওঠে। ১৫ জুন গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় সেনার উপর হামলা করে চিনা সেনা। এই হামলায় ২০ জন জওয়ান শহিদ হন। ভারতের পাল্টা মারে ৩৫ জন চিনা জওয়ান নিহত হয় বলে খবর। তারপর থেকে সীমান্তে শান্তি ফেরাতে সেনার উচ্চপর্যায়ের ও কূটনৈতিক স্তরে একের পর এক বৈঠক হয়েছে। কিন্তু কোনও সমাধানসূত্র বের হয়নি। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর সেনা মোতায়েন রেখেছে চিন। তাই ভারতও পিছু হটতে নারাজ। আর শীতকালে যাতে সেনার কোনও সমস্যা না হয় তার জন্যই তৈরি করা হল এই স্মার্ট তাঁবু।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More