সন্ত্রাসবাদীদের মদত দিচ্ছে পাকিস্তান, কাশ্মীর নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ আমেরিকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ফের একবার জম্মু-কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করল আমেরিকা। সেইসঙ্গে সন্ত্রাসবাদীদের মদত দেওয়ার জন্য পাকিস্তানের কড়া সমালোচনা করেছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সরকার।

মঙ্গলবার ওয়াশিংটনে দক্ষিণ এশিয়ার মানবাধিকার কমিটির একটি বৈঠকে এ কথা বলেন ভারপ্রাপ্ত মার্কিন সহকারী সচিব অ্যালিস ওয়েলস। তিনি জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ভারতের পদক্ষেপের প্রশংসা করেন। ওয়েলস বলেন, “জম্মু-কাশ্মীরের উন্নতির জন্য ভারত সরকার যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে তার প্রশংসা করছে আমেরিকা। কিন্তু এখনও উপত্যকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি। এই নিয়ে আমরা চিন্তিত।”

ওয়েলস আরও বলেন, “জম্মু-কাশ্মীরের সাধারণ মানুষ ও তিন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী-সহ রাজনৈতিক নেতাদের যেভাবে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছিল তা খুবই উদ্বেগের বিষয়। আমরা ভারতের কাছে আবেদন করেছি যাতে কাশ্মীরের মানুষের অধিকার সুরক্ষিত করা হয়। সেইসঙ্গে মোবাইল ও অন্যান্য পরিষেবা পুরোপুরি চালু করা হয়।”

অবশ্য উপত্যকার এই পরিস্থিতিতে যে জঙ্গিদেরও সমান হাত আছে তা এ দিন স্বীকার করে নেন ওয়েলস। তিনি বলেন, “জঙ্গিরা সাধারণ মানুষকে ভয় দেখাচ্ছে। উপত্যকায় নাশকতা চালিয়ে শান্তি নষ্ট করার চেষ্টা করছে।” এই প্রসঙ্গেই পাকিস্তানকে টেনে এনে তিনি বলেন, “পাকিস্তান লস্কর ই তইবা, জইশ ই মহম্মদের মতো জঙ্গি গোষ্ঠীকে মদত দিচ্ছে। সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে নাশকতা চালানোর পরিকল্পনায় পাকিস্তানের প্রত্যক্ষ মদত রয়েছে। এটা পাকিস্তানকে বন্ধ করতে হবে। নইলে জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি কখনওই ভালো হবে না।”

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য এর আগে একাধিকবার ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করতে চেয়েছেন। পাকিস্তান এতে রাজি থাকলেও ভারতের তরফে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এটা দু’পক্ষের নিজেদের ব্যাপার। এর মধ্যে তৃতীয় দেশের নাক গলানোর কোনও দরকার নেই। যদিও পরবর্তীকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আমেরিকা সফরের সময় ট্রাম্প বলেন, তাঁর বিশ্বাস রয়েছে মোদী সরকার কাশ্মীরের পরিস্থিতি ঠিক সামলে নেবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More