রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪

#Breaking: বিজয় মাল্যকে দেশে ফেরানোর অনুমতি দিল ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অবশেষে লিকার ব্যারন বিজয় মাল্যকে দেশে ফেরানোর অনুমতি দিল ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ৯ হাজার কোটি টাকা তছরুপ করে দেশ ছেড়ে পালিয়েছিলেন মাল্য। এতদিন ধরে ব্রিটেনে লুকিয়ে ছিলেন তিনি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে সেখান থেকে ভারতে ফেরানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে ব্রিটিশ সরকারের তরফে।

প্রায় ৯০০০ কোটি টাকা ঋণ অনাদায়ী মামলায় অভিযুক্ত ৬২ বছরের এই ব্যবসায়ী। ঋণের দায়ে ধুঁকতে থাকা কিংফিশার বিমান সংস্থাকে চাঙ্গা করতে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া এবং অন্যান্য ব্যাঙ্ক থেকে ওই বিপুল পরিমাণ টাকা তোলেন তিনি। তবে ঋণ না মিটিয়েই, ২০১৬ সালের গোড়ায় সপরিবার দেশ ছেড়ে চম্পট দেন। সেই থেকে ব্রিটেনে রয়েছেন তিনি।

তাঁকে দেশে ফেরাতে একাধিকবার আবেদন জানিয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলি। ১০ ডিসেম্বর তাঁকে ভারতের হাতে ফেরাতে রাজি হয় ব্রিটেনের আদালত। সেই অনুমতিপত্রে এ দিন সিলমোহর দিয়ে দেয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। তবে এই সিদ্ধান্তকে উচ্চ আদালতে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারবেন মাল্য। সে ক্ষেত্রে আগামী ১৪ দিনের মধ্যে আবেদন জানাতে হবে তাঁকে।

এই ধরণের কিছু একটা সিদ্ধান্ত যে হতে পারে, সেটা আন্দাজ করেই মাস খানেক আগে ঋণ শোধের প্রস্তাব দিয়েছিলেন মাল্য। টুইটারে তিনি বলেছিলেন, “আমি টাকা ফেরাতে চাই। টাকা চুরির যে অভিযোগ উঠেছে, তা থামাতে চাই।” সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলে তিনি দাবি করেন, সরকারের তরফ থেকে ব্যাঙ্কগুলিকে তাঁর প্রস্তাব অগ্রাহ্য করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্য দিকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-কে তাঁর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দিয়েছে। তাঁর প্রস্তাব, ব্যাঙ্কগুলিকে ১০০ শতাংশ মূলধন উদ্ধার করার সুযোগ দেওয়া হোক, যাতে সাধারণের অর্থের কোনও ক্ষতি না হয়।

উল্লেখ্য, এক বছর আগে লন্ডনে গ্রেফতার হন মাল্য। এর পর গত বছর ডিসেম্বর থেকে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তাঁর বিচার শুরু হয়। ভারত প্রত্যর্পণের দাবি তুললে, মাল্য অভিযোগ করেন স্বাস্থ্যকর জেল নেই এ দেশে। সেই অভিযোগ শুনে অবশ্য মাল্যর জন্য বিশেষ জেলের ব্যবস্থার আশ্বাসও দেওয়া হয় ভারতের তরফে।

আরও পড়ুন

Exclusive: ধর্মতলায় দিদিকে ফোন করে দিল্লিতে সীতার সঙ্গে বৈঠক রাহুলের

Shares

Comments are closed.