শনিবার, ফেব্রুয়ারি ১৬

রাজস্থানে সোয়াইন ফ্লুতে এই বছরেই মৃত ১০০, দেশজুড়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, চিন্তায় প্রশাসন

দ্য ওয়াল ব্যুরো : সোয়াইন ফ্লুর প্রকোপ বাড়ছে রাজস্থানে। এক দিনেই ১০০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ বছরেই সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে ১০০ জনের মৃত্যু হয়েছে এই রাজ্যে। সেইসঙ্গে গোটা দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা। এই ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে কোমর বেঁধে নেমেছে রাজস্থান সরকার। সাহায্য পাঠানো হচ্ছে কেন্দ্রের তরফেও।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রে খবর, গত দু’দিনে রাজস্থানে ৯ জন সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। এখনও পর্যন্ত গোটা দেশে এইচ১এন১ ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ৬ হাজার। তারমধ্যে শুধুমাত্র রাজস্থানেই ২৭০৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন এই ভাইরাসে। এখনও পর্যন্ত ভারতে সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন ২২৫ জন। রাজস্থানেই ৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

রাজস্থানের পর দ্বিতীয় রাজ্য হলো গুজরাট যেখানে এই ভাইরাসের প্রকোপ খুব বেশি। এই রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ১১৮৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন সোয়াইন ফ্লুতে। মারা গিয়েছেন ৫৪ জন। পাঞ্জাবে ৩০১ জন আক্রান্তের মধ্যে ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। মধ্যপ্রদেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৬ জনের। মহারাষ্ট্র ও দিল্লিতেও প্রভাব পড়েছে সোয়াইন ফ্লুর। মহারাষ্ট্রে ১৯৭ জন আক্রান্তের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। দিল্লিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪০৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। হরিয়ানায় ৫৮৯ ও তেলঙ্গনাতে ৩৯০ জন আক্রান্ত হয়েছেন এই ভাইরাসে। দুই রাজ্যেই ২ জন করে মারা গিয়েছেন। এ তো শুধুমাত্র সরকারি হিসেব। এর বাইরেও অনেক মানুষের মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে মত বিশেষজ্ঞদের।

প্রত্যেকদিন সোয়াইন ফ্লুর কবলে পড়ে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে থাকায় চিন্তায় প্রশাসন। রাজস্থান সরকারের তরফে স্বাস্থ্য কর্মীর সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে, যাতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে প্রথম পর্যায়েই তা ধরা পড়ে। প্রথম পর্যায়ে ধরা পড়লে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আক্রান্ত ব্যক্তিকে বাঁচানো যায় বলে চিকিৎসকদের বক্তব্য। এ ছাড়াও প্রতিটি হাসপাতালে ভেন্টিলেটর ও অন্য সরঞ্জামের পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে।

এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া থেকে বাঁচার জন্য কীভাবে মানুষকে সচেতন করা যায়, তার চেষ্টা চালাচ্ছে কেন্দ্র। আগে থেকেই এই ভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা দেওয়া সম্ভব কিনা, তার চিন্তা-ভাবনা চালানো হচ্ছে। এ ছাড়াও যেসব স্বাস্থ্য কর্মী এই ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষদের চিকিৎসার দায়িত্বে রয়েছেন, তাঁদেরও এই টিকা দেওয়া যায় কিনা, তার চিন্তা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন

মস্তিষ্কের অংশ নেই, সেই অবস্থায় এক সপ্তাহ বাঁচল সদ্যোজাত, মৃত্যুর পর হলো অঙ্গদান

Shares

Comments are closed.