পোস্ট অফিসে খাতা খুললেই ১৫ লাখ! এই গুজবে তিন দিন ধরে লাইন খালি লম্বা হচ্ছে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পোস্ট অফিসে বিষম কাণ্ড! খবর রটেছিল, অ্যাকাউন্ট খুললেই নাকি সরকার দেবে কড়কড়ে ১৫ লক্ষ টাকা। তার পর থেকেই যা চলছে তার খবর জানাতে গিয়ে হেঁচকি তুলে হোঁচট খেলেন মুন্নার পোস্ট অফিসের বড়বাবু ভি পরমাসিভন।

রবিবার থেকে মুন্নার টাউনের পোস্ট অফিসের বাইরে লম্বা লাইন। পরমাসিভনের কথায়, মঙ্গলবার অবধি লোকে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য ধর্না দিয়ে দাঁড়িয়েছিল। তিন দিনের মধ্যেই হাজারের বেশি অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে গেছে পোস্ট অফিসটিতে। এত কম সময় এত বেশি অ্যাকাউন্ট কোনও দিনই খোলেনি শহরের মাঝামাঝি এই পোস্ট অফিস। তাই একদিকে যেমন আনন্দের বিষয়, অন্যদিকে দুশ্চিন্তাও চেপে বসেছে পোস্ট অফিস সুপারের মাথায়।

কী ভাবে রটল এমন খবর? পরমাসিভন জানিয়েছেন, লোকজনকে জিজ্ঞেস করে যা জানা গেছে, এটা একটা গুজব। লোক মুখে রটে গিয়েছিল মোদী সরকার নাকি একটা বিশেষ প্রকল্প খুলেছে। যাতে পোস্ট অফিসে অ্যাকাউন্ট খুললেই ওই ব্যক্তির নামে জমা পড়ে যাবে ৩-১৫ লক্ষ টাকা। এই খবর ছড়াতেই শয়ে শয়ে লোক এসে লাইন দেয় পোস্ট অফিসের সামনে। তাদের বোঝাতেই হিমশিম খেতে হয়েছে কর্মচারীদের। তবে সুপার জানিয়েছেন, একটা স্কিম চলছিল। যাতে নির্দেশ এসেছিল, মোট এক কোটি টাকার নতুন সেভিংস  অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। ১০০ টাকা ও আধার কার্ড-সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিলেই অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন গ্রাহকরা। এই স্কিমেরই তোড়জোড় চলছিল পোস্ট অফিসে। এর মাঝেই এই গুজব ছড়িয়ে বিপত্তি বাধে।

শুধু পোস্ট অফিসে নয়, সোমবার আরও একটা গুজব ছড়ায় দেবিকুলামের রিজিওনাল ডিস্ট্রিক্ট অফিসে। খবর রটে, সরকার নাকি বিনামূল্য জমি ও বাড়ি বিলি করছেন। খবর শোনামাত্রই আরডিও অফিসের সামনে লাইন পড়ে যায় মানুষজনের। অনেকে অ্যাপ্লিকেশনও জমা করেন।এই বিপুল ভিড়কে নিরস্ত করতে শেষে নোটিস লিখে অফিসের বাইরে ঝুলিয়ে দেন আরডিও অফিসের কর্তারা। খবর যায় পুলিশের কাছেও। দেবিকুলামের সাব-কালেক্টর রেনুরাজ বলেছেন, ‘‘আণরা লোকজনকে জানাই এমন কোনও নির্দেশিকা জারি হয়নি। কেউ ইচ্ছাকৃত হোয়াটসঅ্যাপ বা অন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ছড়িয়েছে। পুলিশের কাছেও অভিযোগ জানিয়েছি আমরা।’’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More