‘দরকারে কোর্টের মধ্যে গুলি চালাব’, আদালতে হুঙ্কার বাগদা থানার এসআইয়ের, রুজু মামলা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ষষ্ঠ দফার ভোটে উত্তর চব্বিশ পরগনার বাগদায় পুলিশের বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগ উঠেছিল। এ নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। নির্বাচন কমিশনও গুলি চালানোর ঘটনা স্বীকার করেছে। কিন্ত শুক্রবার গ্রেফতার হওয়া গ্রামবাসীদের আদালতে হাজির করা হলে তদন্তকারী অফিসারের সঙ্গে ব্যাপক বচসা বাঁধে বনগাঁ আদালতের আইনজীবীদের। অভিযোগ, সেই সময়েই বাগদা থানার সাব ইনস্পেক্টর আসাদুর রহমান হুঁশিয়ারির সুরে ভরা এজলাসে বলেন, “গুলি চালিয়েছি, বেশ করেছি। দরকার হলে কোর্টের মধ্যেও চালাব। আপনারা যা করার করে নিন।” 

পুলিশ কর্মীর এ হেন হুমকিতে আদালতের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয়। এসআই-এর বিরুদ্ধে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে এফআইআর দায়ের করেন আইনজীবীরা। ৫০৬ ধারায় মামলা রুজু করার নির্দেশ দেন বিচারক। পরে অবশ্য ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পান সাব ইনস্পেক্টর আসাদুর।

গতকাল বাগদার গুলি চালানো প্রসঙ্গে এডিজি আইনশৃঙ্খলা বলেছেন জীবন ও সম্পত্তি রক্ষায় পুলিশ তিন রাউন্ড গুলি চালিয়েছে। পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে পাঁচ গ্রামবাসীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। শুক্রবার তাঁদের নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানান বাগদা থানার এসআই। তখনই বচসা শুরু হয়।

শীতলকুচির ঘটনার পর গুলি চালানো নিয়ে সরব মমতা। ষষ্ঠ দফার ভোটে উত্তর চব্বিশ পরগনার মিনাখাঁয় কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগ উঠেছিল। যদিও তা উড়িয়ে দিয়েছে কমিশন। বাগদা কাণ্ড নিয়ে মমতা বলেছেন, কোনও কোনও পুলিশ কেন্দ্রীয় বাহিনীর মতো কথায় কথায় গুলি চালাচ্ছে। এখন কমিশনের আন্ডারে আছে। সারা জীবন থাকবে না। এদের বিরুদ্ধে তদন্ত হবে, ব্যবস্থা হবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More