‘এটাই পাকিস্তানের চরিত্র’, দানিশ কাণ্ডে ইমরানকে তোপ গম্ভীরের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রাক্তন পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব আখতারের মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় ক্রিকেট মহল। গতকাল একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে রাওয়ালপিণ্ডি এক্সপ্রেস বলেন, হিন্দু বলে দানিশ কানোরিয়ার সঙ্গে দুর্বব্যবহার করত পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা। এক টেবিলে বসে খেত না। এর পরেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ময়দানে নামলেন ভারতের প্রাক্তন ওপেনার তথা দিল্লির বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীর।

এদিন ইমরান খান তথা পাকিস্তানের বিরুদ্ধে চড়া সুরে আক্রমণ শানান গৌতি। গম্ভীর বলেন, “এটাই পাকিস্তানের আসল চরিত্র। আমাদের দলের অধিনায়ক ছিলেন মহম্মদ আজহারউদ্দিন। ৮০-৯০টা টেস্টে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ওই দেশের প্রধানমন্ত্রী একজন ক্রিকেটার (ইমরান খান)। তারপরও সেখানকার মানুষদের এসব সহ্য করতে হচ্ছে। পাক দলের হয়ে ৬০টি ম্যাচ খেলেছেন কানেরিয়া। তাই এই ঘটনা অত্যন্ত লজ্জার।”

এখানেই থামেননি তিনি। বলেন, “মহম্মদ কাইফ, ইরফান পাঠান, মুনাফ পটেলকে ভারত অনেক সম্মান দিয়েছে। পটেল তো আমার খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু। আমরা সবসময় দেশকে জেতাতে দলগতভাবে খেলেছি। কিন্তু পাকিস্তানের থেকে যা খবর এল, তা অত্যন্ত দুঃখজনক।”

আখতার ওই সাক্ষাৎকারে আরও বলেছেন, “শুধু ধর্ম নয়, কে লাহোরের, পেশোয়ারের কিংবা কে মুলতানের—এই প্রাদেশিকতাও চরম ভাবে ছিল টিমের খেলোয়াড়দের মধ্যে। এক এক সময় সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে যেত এই ধরনের আচরণ।”

অনিল দলপতের পরে দ্বিতীয় হিন্দু ক্রিকেটার হিসেবে পাকিস্তান দলের সদস্য ছিলেন দানিশ। ডানহাতি এই লেগ স্পিনার স্পট ফিক্সিংয়ের জন্য নির্বাসিত। টেস্টে আড়াইশোর বেশি উইকেট রয়েছে এই লেগ স্পিনারের। এই মুহূর্তে সময়টা নাকি ভাল যাচ্ছে না কানেরিয়ার। এসেক্সের হয়ে কাউন্টি খেলার সময় স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে কানেরিয়াকে নির্বাসন দেয় ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। পাক দলেও আর সুযোগ হয়নি তাঁর। অনেকের কাছেই সাহায্যের আবেদন করেছেন এই স্পিনার। কিন্তু সাহায্য পাননি। তাই বাধ্য হয়েই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের কাছে সাহায্য চেয়েছেন তিনি। কানেরিয়া বলেছেন, “ইমরান খান-সহ পাকিস্তানের সমস্ত কিংবদন্তি ক্রিকেটার ও ক্রিকেট বোর্ডের কাছে সাহায্যের আবেদন করছি। আমি খুব কষ্টে আছি। আমাকে এই অবস্থা থেকে উদ্ধার করুন। এর আগে অনেকের কাছে আমি সাহায্য চেয়েছি। কিন্তু পাইনি। ক্রিকেটার হিসেবে পাকিস্তানের হয়ে আমি নিজের সবটা দিয়েছি। এর জন্য আমি গর্বিত। কিন্তু এখন আমার সাহায্যের দরকার। আমি আশাবাদী পাকিস্তানের মানুষ আমাকে সাহায্য করবেন।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More