কংগ্রেসকে বাদ দিয়েই নাকি সপা-বসপা জোট হচ্ছে উত্তরপ্রদেশে, মমতা বললেন, ‘তাতে কী?’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বুধবার সকাল থেকেই দিল্লি রাজনীতির করিডরে খবর, উত্তরপ্রদেশে মহাজোট হচ্ছে। বুয়া-বাবুয়া তথা রাজ্যের যুযুধান দুই আঞ্চলিক দলের নেতা-নেত্রী মায়াবতী এবং অখিলেশ যাদব জোট ফাইনাল করে ফেলেছেন। চরণ সিংহের পুত্র তথা রাষ্ট্রীয় লোক দলের নেতা অজিত সিংহকেও নিয়েছেন জোটে। এমনকী নিজেদের মধ্যে আসন বন্টনেরও সূত্র চূড়ান্ত করে ফেলেছেন। শুধু কংগ্রেসকে জোটে নেননি। অর্থাৎ জোট হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু মহাজোট নয়!

বুধবার সন্ধ্যায় এ নিয়েই প্রশ্ন করা হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তাঁকে বলা হয়, দিদি উত্তরপ্রদেশে জোট করে নিয়েছে সপা-বসপা। শুনেই মমতা বলেন, “বাহ খুব ভাল কথা। এটা দরকার ছিল।” তার পরই তাঁকে বলা হয়, দিদি ওঁরা কংগ্রেসকে জোটে নেয়নি। জবাবে তৃণমূলনেত্রী বলেন, “সো হোয়াট? এটা কোনও ব্যাপার নয়। কোনও রাজ্যে কংগ্রেস শক্তিশালী। কোথাও আঞ্চলিক দলগুলি শক্তিশালী। ফলে সেই রাজনৈতিক পরিস্থিতি বুঝেই জোট হয়।”

এখানেই থামেননি মমতা। দু’দিন আগে ডিএমকে নেতা এম কে স্ট্যালিন বলেছিলেন, উনিশের নির্বাচনে রাহুল গান্ধীই বিরোধী জোটের প্রধানমন্ত্রী পদ প্রার্থী। বিজেপি বিরোধী শক্তিগুলির উচিত তাঁর হাত শক্ত করা। এ ব্যাপারে প্রশ্নের জবাবেও এ দিন দিদি বলেন,“প্রধানমন্ত্রী পদ প্রার্থী কে হবেন তা নিয়ে এটা আলোচনার সময় নয়। বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি এখন নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে এগোচ্ছে। আশা করছি খুব শিগগির পালাবদল হবে দেশে। তারপর ওসব নিয়ে ভাবা যাবে।”

হিন্দিবলয়ের তিন রাজ্যে কংগ্রেসের জয়ের দিনই মমতার মন্তব্য নিয়ে নানা বিশ্লেষণ হয়েছিল। সে দিন তিন রাজ্যে বিজেপি-র ধরাশায়ী হওয়াকে কংগ্রেসের জয় বলে মন্তব্য করেননি মমতা। রাহুলের নামও মুখে আনেননি। শুধু বলেছিলেন, আমাদের জয় হয়েছে। তা থেকে অনেকে মনে করেছিলেন, জাতীয় রাজনীতিতে রাহুলের মর্যাদা ও উচ্চতা বাড়ুক তা চান না মমতা। তিনি এও চান না কংগ্রেস খুব বেশি শক্তিশালী হোক। উত্তরপ্রদেশের জোটে কংগ্রেসকে বাইরে রাখা নিয়ে মমতা মঙ্গলবার যে মন্তব্য করেছেন, তা সেই একই প্রিজমে দেখছেন বিশ্লেষকরা।

তবে রাজনৈতিক সূত্রে বলা হচ্ছে, উত্তরপ্রদেশে সপা-বসপা জোটের সূত্র ফাইনাল করে ফেলেছে এ খবরের ভিত্তি নিয়ে প্রথমত প্রশ্ন রয়েছে। এ ব্যাপারে মায়াবতী বা অখিলেশ প্রকাশ্যে কিছু বলেননি। তা ছাড়া কংগ্রেস এখনও বলে চলেছে, সম্মানজনক আসন পেলে তবেই জোট হবে। এমনও হতে পারে গোটা ব্যাপারটাই সনিয়া-রাহুলের সঙ্গে আলোচনা করে করছেন মায়াবতী-অখিলেশ। উত্তরপ্রদেশে সম্প্রতি দুই লোকসভার উপ নির্বাচনের ফলাফল বিচার করলেই তা স্পষ্ট হয়ে যাবে। উত্তরপ্রদেশে কয়েক মাস আগেই গোরক্ষপুর এবং কাইরানা লোকসভা আসনে উপ নির্বাচন হয়েছে। সেখানে সপা-বসপা জোট করে লড়েছিল। কংগ্রেস ছিল জোটের বাইরে। এবং দুটি আসনেই প্রার্থী দিয়েছিল কংগ্রেস। ফলাফলে দেখা যায়, দুটিতে বিজেপি হেরেছে এবং সপা জিতেছে। কংগ্রেসের এক শীর্ষ নেতার কথায়, আমরা পৃথক ভাবে না লড়লে সপা জিততে পারত না। কারণ, উত্তরপ্রদেশে কম হলেও উচ্চবর্ণের একাংশ মানুষ এখনও কংগ্রেসকে ভোট দেয়। গোরক্ষপুর এবং কাইরানাতেও তাই হয়েছিল। ভোট ফলাফলের পরিসংখ্যান বলছে, কংগ্রেস যদি জোটে সামিল হত, তাহলে ওই উচ্চবর্ণের ভোট সপা প্রার্থী পেতেন না। তা যেত বিজেপি-র বাক্সে। ফলে দুটি আসনেই বিজেপি প্রার্থী জেতার সম্ভাবনা ছিল। তাই এ বার এমনও হতে পারে যে কংগ্রেস জোটের বাইরে থাকবে। সপা-বসপা-অজিত সিংহ জোট করবেন। শুধু অমেঠি, রায়বরেলী, সুলতানপুরের মতো কয়েকটি আসনে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে প্রার্থী দেবেন না মায়াবতী-অখিলেশ। এও হতে পারে, কংগ্রেসের সেই সম্ভাব্য ফর্মুলার কথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও জানেন। তাই সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, “সো হোয়াট”।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More