রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪

রাজীব কুমারকে বাইরে রাখা যাবে না, ওঁকে হেফাজতে নিন, সিবিআই-কে কুণাল ঘোষ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে হেফাজতে নিয়ে জেরা করার জন্য সিবিআইয়ের কাছে লিখিত আবেদন জানালেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন রাজ্যসভা সাংসদ কুণাল ঘোষ। তাঁর বক্তব্য, রাজীব কুমার প্রভাবশালী ব্যক্তি। ওনাকে হেফাজতে না নিলে চিটফান্ড কাণ্ডে অভিযুক্ত ও সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারেন তিনি।
কিন্তু কী যুক্তিতে এই অভিযোগ জানালেন কুণাল?

সূত্রের খবর, সিবিআইকে দেওয়া ওই চিঠিতে কুণালের মোদ্দা বক্তব্য, ১০ তারিখ রাজীব কুমার ও তাঁকে যৌথ জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। সেই সময় কিছু পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে তথ্য ও প্রমাণ লোপাটের অভিযোগ করেছিলেন তিনি। চিঠিতে কুণালের দাবি, পর দিন অর্থাৎ রবিবার যৌথ জিজ্ঞাসাবাদের সময় রাজীববাবু এক সময় বলে ফেলেন, আগের দিন রাতে সিবিআই দফতর থেকে হোটেলে ফিরে তিনি ওই পুলিশ কর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন।

প্রাক্তন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদের বক্তব্য, রাজীব কুমার যে জেরার সময় সে কথা বলেছিলেন তা ভিডিও রেকর্ডিং করা রয়েছে। এর কম কোনও প্রভাবশালীকে বাইরে রেখে চিটফাণ্ড কাণ্ডের নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু তদন্ত করা সম্ভব নয়। কারণ, কলকাতার পুলিশ কমিশনার সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারেন। তাই তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হোক এবং তাঁকে হেফাজতে নিয়ে জেরা করা হোক।

শিলংয়ে সিবিআই দফতরে কুণাল ঘোষের এই পর্বের জেরা সোমবার শেষ হয়েছে। আজ মঙ্গলবার তিনি কলকাতায় ফিরছেন। এ ব্যাপারে তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, হ্যাঁ আমি সিবিআইয়ের কাছে এই ই মেল বার্তা পাঠিয়ে অভিযোগ করেছি। যা বলার কলকাতায় নেমে সাংবাদিক বৈঠক করে বলব। 

আরও পড়ুন: বিধায়ক খুনে এফআইআর-এ নাম, হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন মুকুলের

ও দিকে মঙ্গলবার কলকাতার পুলিশ কমিশনারকে শিলংয়ে সিবিআই দফতরে ফের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছে। এই নিয়ে টানা চার দিন ধরে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে তাঁর। কুণালের অভিযোগ নিয়ে অবশ্য তাঁর বা সিবিআইয়ের তরফে কোনও বক্তব্য এ দিন জানা যায়নি।

তবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ মনে করছেন, হতে পারে চিটফান্ড কাণ্ডে কুণাল রাজসাক্ষী হতে চাইছেন। তাঁর এই অভিযোগ রাজীব কুমারকে গ্রেফতারের জন্য অর্থাৎ তাঁকে হেফাজতে নেওয়ার জন্য সিবিআইয়ের অস্ত্র হয়ে উঠতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহেই এই সংক্রান্ত মামলায় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ তাঁর রায়ে জানিয়েছিলেন, চিটফান্ড কাণ্ডে সিবিআই তদন্তে সাহায্য করতে হবে কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে। সিবিআই ডাকলে তাঁকে যেতে হবে। তবে তাঁকে গ্রেফতার করা যাবে না, বা তাঁর বিরুদ্ধে এখনই তেমন কোনও ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না। কিন্তু হতেই পারে যে শিলংয়ে রাজীব কুমারকে জেরা করার পর সিবিআই কর্তারা জানাবেন যে, তাঁরা সন্তুষ্ট নন। রাজীববাবুর বক্তব্যে অসঙ্গতি রয়েছে। তা ছাড়া অন্যতম অভিযুক্ত কুণালের এই চিঠিটিকেও সে ক্ষেত্রে তাঁরা ব্যবহার করতে পারেন। এখন দেখার কুণাল কলকাতায় পৌঁছে আর কী বোমা ফাটান! 

Shares

Comments are closed.