মমতাই কি নিশানা? রুজভেল্টকে উদ্ধৃত করে ফ্যাসিবাদ নিয়ে পাঠ রাজ্যপালের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভোট ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। নির্বাচিত সরকার এখন পঙ্গু। নতুন সরকার গঠনের জন্য ভোট প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার আগে মঙ্গলবার ফ্যাসিবাদ নিয়ে পাঠ দিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়।

কী বললেন তিনি?

কিংবদন্তী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কলিন রুজভেল্টকে উদ্ধৃত করেছেন রাজ্যপাল। রুজভেল্ট বলেছিলেন, “গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের তুলনায় কেউ যদি শক্তিশালী হয়ে ওঠে এবং তার পরেও তার সেই বার বৃদ্ধি জনগণ সহ্য করে, তা হলে বুঝতে হবে সেই গণতন্ত্রে স্বাধীনতা বিপন্ন। কোনও ব্যক্তি বা গোষ্ঠী সরকারকে নিজের বলে ভাবতে শুরু করলে সেটাকেই ফ্যাসিবাদ বোঝায়”।

https://twitter.com/jdhankhar1/status/1366769595470602242/photo/1

বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনের আগাগোড়া তীক্ষ্ণ সমালোচনা করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। কখনও দুর্নীতির প্রশ্নে সরব হয়েছেন তো কখনও পুলিশের অতিসক্রিয়তা, বিরোধীদের দমন করতে রাষ্ট্রশক্তির ব্যবহারের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন। শুধু তা নয়, বহু বার তিনি পষ্টাপষ্টিই বলেছেন, বাংলায় সাংবিধানিক ব্যবস্থাও বিপন্ন।

ফলে এদিন তাঁর টুইট দেখে অনেকেই মনে করছেন, ধনকড়ের নিশানা হয়তো মমতাই। রাজ্যে বর্তমান প্রশাসনিক ব্যবস্থাকেই তিনি ফাসিস্ত কায়দা বলে ইঙ্গিত করতে চেয়েছেন।

এমনিতেই তৃণমূল বার বার করে বলে তাঁর দলের ও সরকারের মুখ হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণাতেই সব হয়েছে। মমতা নিজেও বলেন, ২৯৪ টি আসনে তিনিই প্রার্থী। পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, রাজ্যপাল হয়তো রাজ্যবাসীকে বোঝাতে চাইছেন, বাংলাতেও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের তুলনায় কোনও ব্যক্তি বা গোষ্ঠী শক্তিশালী হয়ে উঠেছে। এটা মুখ বুজে সহ্য করলে আখেরে স্বাধীনতাই বিপন্ন হবে। নিজে সে কথা না বলে কৌশলে রুজভেল্টকে উদ্ধৃত করেছেন। যে রুজভেল্ট পর পর চার বার  মার্কিন রাষ্ট্রপতি পদের নির্বাচনে জিতেছিলেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More