বাংলায় করোনা ছড়ালে প্রধানমন্ত্রী আর বিজেপি দায়ী হবেন: পূর্বস্থলীতে মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দু’দিন আগে একটি জনসভা থেকে দিদি অভিযোগ করেছিলেন, বিজেপির বহিরাগতরা করোনা ছড়িয়ে দিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে। শনিবার পূর্বস্থলীর সভা থেকে সেই দায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘাড়েও চাপাতে চাইলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন মমতা বলেন, “বাংলায় করোনা ছিল না। বাইরে থেকে গুন্ডাদের নিয়ে চলে এসেছে। পাড়ায় পাড়ায় বসে রয়েছে। হোটেল, গেস্টহাউস, বাড়ি ভাড়া নিয়ে রয়েছে। সবার করোনা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর মঞ্চ সাজানোর কাজ যে করে, সে-ও বাইরের। এখানে করোনা ছড়ালে বিজেপি এবং প্রধানমন্ত্রী দায়ী হবেন।”

কোভিড পরিস্থিতিতে গতকাল সর্বদল বৈঠক ডেকেছিল নির্বাচন কমিশন। সেখানে তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়, শেষ তিন দফার ভোট এক দফায় করে নেওয়া হোক। কিন্তু তাতে বিজেপি, বাম-সহ বিরোধীরা আপত্তি জানায়। কমিশনও দফা কমানোয় সায় দেয়নি। তবে নির্বাচন সদন জানিয়েছে, ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম দফার ভোটে প্রচারের সময় কমবে। সকাল ১০টা থেকে সন্ধে সাতটা পর্যন্ত প্রচার করা যাবে। ভোটের ৭২ ঘণ্টা আগে বন্ধ করতে হবে প্রচার। এদিন তা নিয়েও ক্ষোভ উগরে দেন মমতা।

পূর্বস্থলীর সভা থেকে মমতা বলেন, “কমিশনকে বললাম দফা কমিয়ে দিতে। তা না করে প্রচারের মেয়াদ কমিয়ে দিল। কারণ বিজেপি-র আর তেমন প্রচার নেই। এই পা নিয়ে প্রচার করে বেড়াচ্ছি। তা সত্ত্বেও ইচ্ছাকৃত ভাবে আমার দিনগুলো নষ্ট করে দিল। আগামী দিনে যে কেন্দ্রে ভোট, বিজেপি জানে তার একটাতেও জিতবে না। তার জন্যও প্রচারের সময় কমিয়ে দিল।”

দেশে করোনা বাড়ছে অথচ প্রধানমন্ত্রী ভোটের প্রচার করে বেড়াচ্ছেন বলেও সমালোচনা করেন দিদি। তিনি বলেন, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী অক্সিজেন-সহ অন্যান্য উপকরণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চাইছেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর সচিবালয় বলছে, তিনি ভোট প্রচারে ব্যস্ত!

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More