গরুর দড়ি ছিঁড়লেও গোয়ালেই ফেরে, মুকুলের ঘরওয়াপসির পর মন্তব্য অনুব্রতর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিজেপিতে তিষ্টতে না পেরে তৃণমূলে ফিরেছেন মুকুল রায়। সঙ্গে ছেলে শুভ্রাংশুও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাশে বসে বলেছেন, মুকুল আমাদের ঘরেরই ছেলে। ও ঘরে ফিরল। উত্তরীয় পরিয়ে দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তপসিয়ার তৃণমূল ভবনে যখন টানটান রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের চিত্রনাট্য লেখা হচ্ছে তখন সুদূর বোলপুরে বসে টিপ্পনি কাটলেন বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

তাঁর জিভের ডগায় চোখা চোখা কথা লেগে থাকে। এদিন মুকুলের তৃণমূলে ফেরা নিয়ে অনুব্রত বলেন, “অনেক সময়ে রাত্রিবেলা গরু দড়ি ছিঁড়ে পালায়। কিন্তু সকাল হলে আবার ফিরে আসে।” তিনি যে উপমা দিয়ে মুকুলে রায়ের তৃণমূলের ফেরাকে বর্ণনা করেছেন তা শুনে অনেকেই বলছেন, আসলে অনুব্রত টিপ্পনি কেটেছেন।

তবে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন দিদির কথাই শেষ কথা। তাঁর বক্তব্য, ‘নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা সিদ্ধান্ত নেবেন তাই হবে। দলের সুপ্রিমো যা বলবে তাই হবে। দল যদি মনে করেন মুকুল রায়কে নেবে, তাহলে নেবে।”

একথার পরেই আবার কেষ্ট মণ্ডল বলেছেন, অনেকে বলেন মুকুল রায় চাণক্য। একুশের ভোটে মুকুল তৃণমূলে ছিলেন না। অথচ ষোলর থেকেও বেশি আসনে জিতেছে তৃণমূল। আসল চাণক্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

লোকসভা নির্বাচনের আগে বীরভূমে গিয়ে একবার মুকুল রায় বলেছিলেন, এই জেলায় একটা লোকই তৃণমূল চালান, তিনিই এসপি, তিনিই ডিএম। তাঁকে যদি কমিশন নজরে রাখলেই এই জেলায় তৃণমূল শেষ। সেই সময় অনুব্রত বলেছিলেন মুকুল রায় বাচ্চা ছেলে। কিচ্ছু জানেন না।

হতে পারে সেসব কথাই হয়তো মনে পড়ে গিয়েছে অনুব্রতর। তবে এদিন মুকুল রায় বলেছেন, “বিজেপি থেকে বেরিয়ে নতুন আঙিনায় এসে খুব ভাল লাগছে। পুরনোদের সঙ্গে দেখা হল। বাংলা আবার আগের মতো চলবে। বাংলাকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেবেন আমাদের নেত্রী, ভারতের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।”

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More