‘বন্দুকের বাঁট দিয়ে মাথায়-গলায় মেরেছে, অসহ্য যন্ত্রণা’, নিমতায় বিজেপি কর্মীর মাকে বেধড়ক মার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিমতায় বিজেপি কর্মীর বাড়িতে ঢুকে তাণ্ডব চালাল একদল দুষ্কৃতী। রাতদুপুরে দরজা ভেঙে বাড়িতে ঢুকে বিজেপি কর্মীকে বেধড়ক মারধর করা হয়। রেহাই পাননি তাঁর ৮৫ বছরের বৃদ্ধা মাও। ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে দুষ্কৃতীদের হাতে এলোপাথাড়ি মার খেতে হয় তাঁকে। বন্দুকের বাঁট দিয়ে অশীতিপর বৃদ্ধার মাথায়, গলায় আঘাত করে দুষ্কৃতীরা। মেরে ফাটিয়ে দেয় মুখ-চোখ। ঘটনায় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিদের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে বিজেপি।

উত্তর দমদম বিধানসভার নিমতা ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা গোপাল বসু রায়ের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে শুক্রবার রাতে। গোপালবাবু ওই ওয়ার্ডের ২ নম্বর মণ্ডলের বিজেপি কর্মী। তাঁরও বয়স ৬২ বছরের আশপাশে। শারীরিক প্রতিবন্ধকতাও আছে।

গোপালবাবুর পরিবারের অভিযোগ, শুক্রবার বেলা ২ টো থেকে আড়াইটে নাগাদ সাত-আটজনের একটি দল চড়াও হয় বাড়িতে। দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকে তারা। প্রথমে হুমকি দেওয়া শুরু করে গোপালবাপুকে, তারপর আচমকাই এলোপাথাড়ি মারতে শুরু করে। বন্দুকের বাট দিয়ে গোপালবাবুর মাথায়, সারা শরীরে আঘাত করে দুষ্কৃতীরা। তাঁর ঘাড় ধরে টেনে এনে বেধড়ক মারধর শুরু হয়। ছেলেকে বাঁচাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন বৃদ্ধা মা। নিস্তার পাননি তিনিও।

গোপালবাবুর মা রিনা দেবী বলেছেন, “আমার ছেলেকে ঘাড়ধাক্কা দিচ্ছিল। খুব মারছিল ওরা। আমি বাঁচাতে গেলে আমাকেও মারে। মাথায় ও গলায় মারতে থাকে। আমার সারা শরীরে অসহ্য যন্ত্রণা।”

কারা সেদিন তাঁর বাড়িতে চড়াও হয়েছিল তা বুঝে উঠতে পারেননি বৃদ্ধা মা। তাঁর চোখ-মুখ সাঙ্ঘাতিক ভাবে ফুলে গেছে। চোখ যেন ঠিকরে বেরিয়ে আসছে। মারের চোটে সারা মুখে জমাট বেঁধে আছে রক্ত। বৃদ্ধা বলেছেন, মুখ খোলা বারণ। খুনের হুমকি দিয়ে গেছে দুষ্কৃতীরা। কাওকে কিছু বললে ফের বাড়িতে ঢুকে পড়তে পারে তারা। আতঙ্কের প্রহর গুনছেন বৃদ্ধা।

ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এখনও অবধি কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। গোটা ঘটনায় তৃণমূলের দিকেই অভিযোগের আঙুল উঠেছে। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করে জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র রথীন ঘোষ বলেছেন, “সবটাই পারিবারিক ঝামেলা থেকে হয়েছে। পাড়ার কোনও গণ্ডগোল থেকে এমন হয়েছে। থানায় যে অভিযোগ করা হয়েছে তার ভিত্তিতে তদন্ত হবে। প্রকৃত দোষীরা শাস্তি পাবে। এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতি বা দলের কোনও সম্পর্ক নেই।”

বিজেপির বক্তব্য, বাংলা কি এভাবেই নিজের মেয়েকে দেখতে চায়? বাংলার মায়েদের সুরক্ষা কোথায়? টুইট করে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন, শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, অমিত মালব্যরা। টুইটে শুভেন্দু লিখেছেন, “নিজেকে বাংলার মেয়ে বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী, আর তার শাসনেই বাংলার মায়েরা আজ অসুরক্ষিত। তাই বাংলার মা-বোনেদের সম্মান ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে প্রয়োজন আসল পরিবর্তন।”

এনিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ঘৃণ্য রাজনীতির খেলায় মত্ত বিজেপি। একজন শয্যাশায়ী বৃদ্ধাকেও রেয়াত করল না! নিমতার যে বৃদ্ধা পারিবারিক হিংসার শিকার, তাঁর কষ্টকে রাজনৈতিক কারণে ব্যবহার করে বিজেপি বুঝিয়ে দিলো এরা কারও কথা ভাবে না, এদের শুধু ক্ষমতার লোভ আছে, আর জানে মানুষকে ব্যবহার করতে।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More