‘বেদের মেয়ে জ্যোত্‍স্না’কে মনে আছে? কী করছেন আজকাল!

গ্রাম, মফস্বলে উৎসব পার্বনে ফুল ভলিউমে বাজছে সে ছবি গান, ‘বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না আমায় কথা দিয়েছে, আসি আসি বলে জ্যোৎস্না ফাঁকি দিয়েছে...।’ সেই গানে প্লে ব্যাক করেছিলেন, অ্যান্ড্রু কিশোর আর রুনা লায়লা।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নয়ের দশকের কথা। মেদিনীপুরের হরিদেবপুরে পাশাপাশি দুটো সিনেমা হল। একটিতে চলছে ‘টাইটানিক’ এবং অন্যটিতে ‘বেদের মেয়ে জ্যোত্‍স্না’।

দেখা গিয়েছিল, টাইটানিক মাছি তাড়াচ্ছে। আর পাশের হলে তুলকালাম। বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না মুক্তি পাওয়ার তিন মাস পরেও হাউজফুল। এক্কেবারে সামনে আড়াই টাকার টিকিটও ব্ল্যাক হচ্ছে বিশ টাকায়। সে হইহই কাণ্ড! ইউফোরিয়া..। গ্রাম, মফস্বলে উৎসব পার্বনে ফুল ভলিউমে বাজছে সে ছবি গান, ‘বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না আমায় কথা দিয়েছে, আসি আসি বলে জ্যোৎস্না ফাঁকি দিয়েছে…।’ সেই গানে প্লে ব্যাক করেছিলেন, অ্যান্ড্রু কিশোর আর রুনা লায়লা। তবে সুর ছিল ধার নেওয়া—‘এক পরদেশি মেরা দিল লে গায়া’ গান থেকে অনুপ্রাণিত।

ইলিয়াস কাঞ্চন: রূপালী পর্দার আড়ালে একজন নিভৃত মহানায়ক
ইলিয়াস কাঞ্চন ও অঞ্জু ঘোষ

শোনা যায় হরিদেবপুরের ওই হলের সামনে দাঁড়িয়ে স্রেফ কৌটো নেড়ে নাকি একটি মনসা পুজোর কমিটি লক্ষাধিক টাকা অনুদান পেয়েছিল।

ওপার বাংলা এপার বাংলায় তোলপাড় ফেলে দেওয়া সেই নব্বইয়ের বেদের মেয়ে ওরফে হিরোইন অঞ্জু ঘোষকে মনে আছে কি! তিনি এখন কোথায়, কী করছেন আজকাল!

I must return': Anju Ghosh hints at Bangladesh film comeback
তোজাম্মেল হক ও অঞ্জু ঘোষ

এখানে জানিয়ে রাখা ভাল, বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না আগে মুক্তি পেয়েছিল বাংলাদেশে। সেখানে সিনেমার নাম ছিল, ‘বেদের মেয়ে কাঞ্চনের এবং নায়িকা অঞ্জু ঘোষ। বাংলাদেশে বিপুল সাড়া পাওয়ার পর ভারতে তার রিমেক করেন তোজাম্নেল। তবে এ বার নায়ক বদলে যায়। ইলিয়াস কাঞ্চনের পরিবর্তে চিরঞ্জিৎ।

Beder Meye Jyotsna will reborn in small screen dgtl -Ebela.in
চিরঞ্জিত ও অঞ্জু ঘোষ

মজার কথা, সেই চিরঞ্জিৎ ওরফে দীপক চক্রবর্তী এখন তৃণমূলের বিধায়ক। আর অঞ্জু ঘোষ তথা সেই বেদের মেয়ে যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে।

উনিশের লোকসভা ভোটের পর পরই বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন অঞ্জু। ইদানীং তাঁকে অবশ্য বিশেষ দেখা যাচ্ছে না। কেন যাচ্ছে না, তার সদুত্তরও নেই বিজেপির কাছে। তবে খাতায়কলমে তিনি গেরুয়া শিবিরেই রয়েছেন।

অঞ্জু ঘোষ বিজেপিতে যোগ দিতেই দুই বাংলায় তীব্র বিতর্ক হয়েছিল। অনেকের অভিযোগ ছিল, অঞ্জু বাংলাদেশী নাগরিক। উনিশের ভোটে তৃণমূলের হয়ে প্রচার করার জন্য রানি রাসমণির নায়ক নূর এবং ফিরদৌসকে কালো তালিকাভুক্ত করে দেশে পাঠিয়েছিল ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। তারপর অঞ্জুর বিজেপিতে যোগদানের ঘটনায় তোলপাড় পড়ে যায়।
যদিও বিজেপি দাবি করে অঞ্জু ভারতীয়। তাঁর জন্মের শংসাপত্র, ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, প্যান কার্ড, পাসপোর্টের প্রতিলিপি দেখিয়ে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার দাবি করে বলেন, ‘‘কলকাতাতেই জন্ম অভিনেত্রী অঞ্জু ঘোষের। জন্মসূত্রে অঞ্জু ঘোষ ভারতীয়। সল্টলেকের সেক্টর ২ এলাকার বাসিন্দা’’।

বেদের মেয়ে জোসনা'-কে নিয়ে বিজেপি-তৃণমূল দ্বন্দ্ব | Dhaka Tribune Bangla
দিলীপ ঘোষ ও অঞ্জু অঞ্জু ঘোষ

বাংলায় ‘বেদের মেয়ে জ্যোত্‍স্না’-র শব্দবন্ধের রাজনৈতিক ব্যবহারও হয়েছিল। একবার এক নেতাকে তরমুজ বলে কটাক্ষ করেছিলেন এক নেত্রী। উপরটা সবুজ, ভিতরটা লাল। সেই নেতা তখন কংগ্রেসে ছিলেন। তিনি পাল্টা বলেছিলেন ‘বেদের মেয়ে জ্যোত্‍স্না’!
সেই বিএমজে এখনও বাংলার রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে। কে বলতে পারে একুশে চিরঞ্জিৎ বনাম অঞ্জু হবে না!

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More