কমিশনের উদ্দেশে শুভেন্দু:‘ম্যাম ম্যাম করা লোকেদের নবান্নে রেখে ভোট হবে না’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এগারো সালে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পর থেকে সরকারকে ভিতর থেকে চেনেন শুভেন্দু অধিকারী। ভোটের সময়ে নবান্নর কী ভূমিকা থাকে তাও নিশ্চয়ই তাঁর নখদর্পণে।

শনিবার সেই শুভেন্দু অধিকারী ডানকুনির সভায় দাবি করলেন, “নবান্নে ইলেকশন সেলকে ভেঙে দিতে হবে। বিজেপির এই নবাগত নেতা বলেন, গতকাল টিভিতেই দেখছিলাম, নবান্নে ইলেকশন সেল খোলা হয়েছে। মুখ্য সচিবের নেতৃত্বে এই নির্বাচনী সেল রাখা যাবে না”।

কেন? তার ব্যাখ্যা দিয়ে শুভেন্দু বলেন, নবান্নের গোটা ব্যবস্থার দলীয়করণ করে ফেলেছেন ব্যক্তিকেন্দ্রিক দলের মাননীয়া চেয়ারম্যান, ভাইপো এমডি আর এক ভোট ম্যানেজার। এদের কথাতেই সব চলে। লাইভে দেখতে পান নিশ্চয়ই, মাননীয়া বলছেন, এই আলাপন, এই দ্বিবেদী, এই বীজেন্দ্র, এই সুরজিৎ! আর তারা বলছেন, ম্যাম ম্যাম ম্যাম ম্যাম। এই ম্যাম ম্যাম করা লোকেদের নবান্নে রেখে ভোট করা যাবে না। ইলেকশন সেল তুলে দিয়ে তাতে তালা লাগাতে হবে”।

শুভেন্দু স্পষ্ট কথাতেই বোঝাতে চেয়েছেন যে নবান্নে অনুগত অফিসারদের রেখে মমতা ভোট প্রভাবিত করতে চাইছেন। প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রীর কথায়, নবান্নে সিএমও-তে দুজন ডব্লিউবিসিএস অফিসার বসিয়ে রেখেছেন, সৌমেন বন্দ্যোপাধ্যায় ও সৌম্য হালদার। এদের কাজ হল, হোয়াটস্যাপে, ফেসটাইমে, ল্যান্ড ফোনে বিডিও, এসডিও-দের ফোন করে চমকানো। আর প্রত্যেকটা থানা এবং রাজ্য স্তরে সিআইডি, এসটিএফ, আইবি ইত্যাদির অফিসার বসিয়ে রেখেছে। এদের কাজ হল বিরোধীদের ফোনে আড়ি পাতা।

শুভেন্দুর এই দাবিতে এদিন জোরালো সমর্থন করেছেন অনেক বাম, কংগ্রেস নেতাও। বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নানের কথায়, “শুভেন্দু সরকারে ছিল। মমতা কীভাবে ভোট করায় নিশ্চয়ই জানবে।” তাঁর কথায়, শুধু আট দফায় ভোট করালে চলবে না। ভোট অবাধ ও সুষ্ঠ করা কমিশনের কাছে চ্যালেঞ্জ। মানুষকে নিরাপত্তা দিতে হবে।

বাংলার ভোটে কী পরিমাণ অনিয়ম আর হিংসা হয় তা অনেকেরই জানা। ভোটে পুলিশ ও প্রশাসনের একাংশের বিরুদ্ধে প্রতিবার পক্ষপাতের অভিযোগ ওঠে। অনেকের মতে, শুভেন্দু কৌশলগত ভাবেই এ সব কথা জোর দিয়ে বলছেন। যাতে কমিশন তা কানে তোলে। কারণ, সত্যিই যদি নবান্ন থেকে ভোট প্রভাবিত করার চেষ্টা হয় তা হলে আট দফা কেন ষোল দফা ভোট করিয়েও সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন সম্ভব নয়।
ঘটনা হল, বাম জমানায় এ ধরনের অভিযোগ মহাকরণের বিরুদ্ধে তুলতেন মুকুল রায়রা। ভোটের মধ্যেই বার বার দিল্লিতে নির্বাচন ভবনে ছুটতে দেখা যেত তাঁকে। এখন সেই তৃণমূল ক্ষমতায়। বিজেপি এখন ছুটছে কমিশনের কাছে। বিস্তর অভিযোগ বাম, কংগ্রেসেরও।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More