ব্রিগেডে আসছেন না তেজস্বী, লিবারেশনের তত্‍পরতায় দিদির সঙ্গে বৈঠকের সম্ভাবনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শনিবার বেশি রাত পর্যন্ত রাজ্য সিপিএম জানিয়েছিল, রবিবাসরীয় ব্রিগেডে বলবেন বিহার ভোটের ম্যান অফ দ্য ম্যাচ তেজস্বী যাদব। কিন্তু সকাল বেলা জানা গেল তরুণ আরজেডি নেতা বাম-কংগ্রেসের ব্রিগেডে আসছেন না। একই সঙ্গে জল্পনা কলকাতায় এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করতে পারেন লালুপ্রসাদ যাদবের ছোট ছেলে। জানা গিয়েছে, এই গোটাটা সমন্বয় করছে সিপিআইএম লিবারেশন।

বিহারে তেজস্বীদের জোট শরিক লিবারেশন। ফলাফলের দিনই দীপঙ্কর ভট্টাচার্য বলেছিলেন, বাংলার বামপন্থীরা মূল শত্রু চিহ্নিত করতে ভুল করছে। তাঁর বক্তব্য ছিল কখনওই বিজেপির সঙ্গে তৃণমূলকে গুলিয়ে ফেলা ঠিক নয়। বিহারে যে ভাবে সমস্ত এনডিএ-র বাইরের দল জোট বেঁধেছিল তেমন বাংলায় হোক বলে প্রস্তাব ছিল লিবারেশনের।

তবে বিহারের সেই জোটে সিপিএম এবং কংগ্রেসও ছিল। বাংলায় সিপিএম আর কংগ্রেস নেতাদের বক্তব্য বিহার আর বাংলার প্রেক্ষাপট এক নয়। এখানে তৃণমূলের বিরুদ্ধে মানুষের যে ক্ষোভ রয়েছে তাকে অস্বীকার করা মানে বিরোধী ভোট বিজেপির দিকে যেতে সাহায্য করা।

তা ছাড়া সিপিএমের সঙ্গে জোট আলোচনায় কলকাতার দুটি আসন এন্টালি ও জোড়াসাঁকো আরজেডিকে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা জামুড়িয়াও দাবি করছিল বলে সিপিএম সূত্রে খবর। কিন্তু আলিমুদ্দিন তাতে রাজি হয়নি। সেই থেকেই জট পাকাতে শুরু করে।

২০১৯ সালের ১৯ জানুয়ারি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকে ব্রিগেডে যে ইউনাইটেড ইন্ডিয়া সমাবেশ হয়েছিল তাতে তেজস্বী ছিলেন বক্তা। সপ্তাহ দুয়েক আগে অধীর চৌধুরী, বিমান বসু জানিয়েছিলেন জোটে আরজেডি, জেডিএস, এনসিপির মতো ছোট দল আসতে চাইছে। এখন দেখার বাংলার ভোটে তৃণমূলের সঙ্গে আরজেডি আসন সমঝোতা করে কিনা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More