তৃণমূল-জেডিইউ কর্মীদের সংঘর্ষে তেতে উঠল শালিমার, গ্রেফতার ৪

দ্য ওয়াল ব্যুরো, হাওড়া: ভোট-পরবর্তী হিংসা অব্যাহত হাওড়ায়। ডোমজুড় ও চ্যাটার্জিহাটের পর এবার উত্তপ্ত হল শালিমার এলাকা। তৃণমূল কংগ্রেস এবং জনতা দল ইউনাইটেড কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে গোটা এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বৃহস্পতিবার। এ ঘটনায় পুলিশ আজ দুপক্ষের চারজনকে গ্রেফতার করেছে। ধৃতদের আজ হাওড়া আদালতের চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের এজলাসে তোলা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মারধর, খুনের চেষ্টা সহ একাধিক জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা করেছে শিবপুর থানার পুলিশ।

বৃহস্পতিবার শালিমারের কয়লা ডিপো এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেস এবং জেডিইউ কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। জেডইউ কর্মীদের অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা সশস্ত্র অবস্থায় তাঁদের ওপর হামলা চালায়। লাঠিসোটা, লোহার রড এবং ভোজালি দিয়ে তাঁদেরকে মারধর করে। আহত হন তাদের পাঁচ কর্মী। এবারের ভোটে জেডিইউ দলের হয়ে কাজ করার জন্যেই তাঁদের ওপর হামলা চলে তাঁরা অভিযোগ জানিয়েছেন।

আহত এক জনতা দল ইউনাইটেড কর্মী সত্যেন্দ্র রায় জানান, এর আগেও তাদের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। ১৩ই এপ্রিল তাঁরা শিবপুর থানায় অভিযোগও দায়ের করেন। সেই অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য তাঁদের উপর চাপ দেয় তৃণমূল কর্মীরা। জেডিইউ কর্মীরা অভিযোগ তুলতে অস্বীকার করলে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়।

তৃণমূলের পক্ষ থেকে অবশ্য যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। স্থানীয় তৃণমূল নেতা সন্তোষ সিং জানান, তাঁদের কর্মীদের ওপর প্রথমে হামলা চালায় জেডইউ কর্মীরা। তাদেরও তিনজন কর্মী আহত হন। দক্ষিণ হাওড়ার জেডইউ প্রার্থী শ্রীকান্ত ঘোষের নেতৃত্বে এই ঝামেলা হয়েছে। দুপক্ষই শিবপুর থানায় পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ দু পক্ষের মোট চারজনকে গ্রেফতার করে। ধৃতদের আজ হাওড়া আদালতে তোলা হয়।
এলাকার পরিস্থিতি থমথমে। জেডইউ প্রার্থী শ্রীকান্ত ঘোষ বলেন, “আমার বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ মিথ্যে। তৃণমূল কংগ্রেস আসলে বুঝে গেছে দক্ষিণ হাওড়ায় তারা হারতে চলেছে। তাই ইচ্ছাকৃতভাবে হামলা চালাচ্ছে তৃণমূল।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More