‘মহিলাদের সুরক্ষায়’ বেহালা পূর্বে রত্না, আরামবাগে লড়বেন সুজাতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০১৮ সালের কালী পুজোর দিন সন্ধেবেলার কথা। কালীঘাটের বাড়িতে রত্না চট্টোপাধ্যায়কে ডেকে দিদি বলেছিলেন, “রত্না তুই মন দিয়ে কাজ কর। কোনও দিকে তাকাবি না!” পাশে বসে থাকা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের উদ্দেশে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, “পার্থদা ওকে ব্যবহার করুন। রত্নাকে বেশি বেশি করে কাজ দিন!”

তারপর গত আড়াই বছরে অনেক জল গড়িয়ে একুশের ভোট যখন দোড়গোড়ায়, শোভন চট্টোপাধ্যায় যখন বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে বিজেপির প্রচারে শামিল হচ্ছেন জেলায় জেলায়, তখন বেহালা পূর্বে শোভনবাবুর ধর্মপত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়কে প্রার্থী করে দিলেন মমতা।

এদিন প্রার্থী ঘোষণার সময় দিদি বলেন, “বেহালা পূর্বে প্রার্থী হচ্ছেন ফেমাস ক্যান্ডিডেট—রত্না চট্টোপাধ্যায়। মহিলাদের সুরক্ষার জন্য মহিলাদের নিরাপত্তার জন্য উনি লড়বেন।” বেহালা পূর্বে দিদি কাকে প্রার্থী করে তৃণমূল সেদিকে নজর ছিল সকলেরই। কারণ ওই আসনেই জিততেন শোভনবাবু। দিদি যাঁকে কানন বলে ডাকতেন।

গত দু’বছর ধরে তৃণমূলের সমস্ত কর্মসূচিতে বেহালা পূর্বে নেতৃত্ব দিয়েছেন রত্না। শোভন চট্টোপাধ্যায় যত তৃণমূলের বিরুদ্ধে ঝাঁঝালো আক্রমণ শানিয়েছেন তত মমতার প্রতি আনুগত্য দেখিয়েছেন রত্না। এদিন রত্না বলেন, “দিদি যে আমার ভরসা করেছেন তার জন্য আমি খুশি। তাঁর ভরসার মর্যাদা রাখব। বেহালার মানুষ কখনওই ব্যভিচারিদের সমর্থন করবে না। এই কেন্দ্রে তৃণমূলের জয় নিশ্চিত।”

অন্যদিকে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ-এর স্ত্রী সুজাতা মণ্ডল খাঁকে আরামবাগ কেন্দ্রে প্রার্থী করেছেন মমতা। আরামবাগ তফসিল সংরক্ষিত আসন। সেই কেন্দ্রে লড়বেন সুজাতা। স্ত্রী বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর সৌমিত্রর কান্নায় ভেঙে পড়া তারপর বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিস পাঠানো—সবই দেখেছে বাংলার রাজনীতি। এবার সেই সুজাতাকেই ভোটের লড়াইয়ে নামালেন দিদি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More