রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪

ভেঙে পড়েছে স্কুল বিল্ডিংয়ের চাঙড়, তাঁবু খাটিয়েই মাধ্যমিক ডেবরায়

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পুরনো ও নতুন বাড়ি মিলিয়েই পড়েছিল মাধ্যমিক পরীক্ষার সিট। কিন্তু, পরীক্ষা শুরুর আগেই দেখা দিল বিপত্তি। হুড়মুড়িয়ে খসে পড়ল পুরনো বাড়ির চাঙড়। শেষে তাঁবু খাটিয়েই শেষরক্ষা করতে হল স্কুল কর্তৃপক্ষকে। পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা ব্লকে মঙ্গলবার এই ছবিই ধরা পড়ল পাঁচগেড়িয়া হাইস্কুলে।

স্কুলে এ বারের পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৫৯৬ জন। তার মধ্যে ৯৬ জনের সিট পড়ছিল পুরনো বিল্ডিংয়ে। সূত্রের খবর, স্কুলের পুরনো বিল্ডিংয়ের এমনিতেই জরাজীর্ণ দশা। মাথার ওপর থেকে হামেশাই খসে পড়ে কংক্রিটের চাংড়। পরীক্ষা শুরু আগেও এমন ঘটনা ঘটায় ভয় পেয়ে যান স্কুল কর্তৃপক্ষ। তাই তাঁবু খাটিয়েই করা হয় পরীক্ষার ব্যবস্থা।

মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে রাজ্যের এ বছরের মাধ্যমিক পরীক্ষা। দুপুর ১২টায় পরীক্ষা শুরু হয়। আজ ছিল প্রথম ভাষার প্রথম পত্রের পরীক্ষা। জীবনের প্রথম পরীক্ষায় এমন বিড়ম্বনা দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন অভিভাবকরা। তাঁদের অভিযোগ, মাধ্যমিকের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষায় গাফিলতির নজির তৈরি করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। ক্লাসঘরের বাইরে ছাউনি খাটিয়ে পরীক্ষা দিতে অসুবিধা হয়েছে পড়ুয়াদের। দায়সারা ভাবে কাজ সেরেছেন স্কুলের শিক্ষকরাও।

অন্যদিকে পড়ুয়াদের দাবি, তাঁবুর ভিতরে পরীক্ষা দেওয়ার পরিবেশই ছিল না। তাদের একজনের কথায়, ‘‘তাঁবু দেখে মনে হচ্ছিল বিয়েবাড়িতে বসে আছি। চারদিকে এত আওয়াজ আর খোলা মাঠে বসে পরীক্ষা দিতে অসুবিধা হয়েছে। লেখাতে মন দিতেই পারছিলাম না।’’

ঘটনার বিষয়ে আপাতত মুখে কুলুপ এঁটেছে পর্ষদ থেকে স্কুল কর্তৃপক্ষ। জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধক্ষ মামনি মান্ডিকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে, তিনি বলেন, ‘‘এমন অভিযোগ এসেছে। তবে বিষয়টা নিয়ে এখনও ঠিকমতো কিছু জানি না। আমরা খতিয়ে দেখে তবেই বলতে পারবো।’’

আরও পড়ুন:

#Breaking: মাধ্যমিক শুরুর এক ঘণ্টার মধ্যে হোয়াটসঅ্যাপে ঘুরছে বাংলার প্রশ্ন

#Breaking: মাধ্যমিক শুরুর এক ঘণ্টার মধ্যে হোয়াটসঅ্যাপে ঘুরছে বাংলার প্রশ্ন

Shares

Comments are closed.